The path to the image is not correct.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

আদালত অবমাননা, ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদকের বহিষ্কার দাবি
  • ৩০ অক্টোবর ২০১৯ ২১:১৬:২৩
  • ৩০ অক্টোবর ২০১৯ ২১:১৬:২৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আদালত অবমাননা, ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদকের বহিষ্কার দাবি

ছবি : সংগৃহীত

ইবি প্রতিনিধি :

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের আরেকটি অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়েছে। ২ মিনিট ১৮ সেকেন্ডের এই অডিওতে রাকিব অজ্ঞাত এক ব্যাক্তির সাথে আদালত ও বিচার ব্যবস্থা নিয়ে নানা আপত্তিকর কথা বলতে শোনা যায়। 

২৯ অক্টেবর, মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে অডিওটি ভাইরাল হলে তাৎক্ষণিক ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। 

ফাঁসকৃত অডিও সূত্রে জানা যায়, সম্পাদক রাকিব অজ্ঞাত এক ব্যক্তির সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগ, আইন বিভাগ ও গণিত বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ প্রসঙ্গে কথা বলেন। কথোপকথনে অজ্ঞাত ব্যাক্তি বলেন, ‘ফিন্যান্সে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছেলে আবেদন করেছে। আইন বিভাগে একটা সার্কুলার হয়ে রয়েছে। আর গণিত বিভাগের সাইফুলের স্ত্রীর ব্যাপারাটা কনফার্ম করতে হবে। এসময় রাকিব অডিওতে বলেন, সে ব্যাপারটা হবে। কিন্তু মেলা টাকা লাগবে। হাইকোর্টে একটা রীট করতে হবে। করে রায় কিনে আনতে হবে। হাইকোর্টের এমন এমন জায়গায় এমন এমন লাইন, আপনি যেভাবে চাবেন সেভাবে রায় দিবে। শুধু টাকা লাগবে। এসব পথ আমি পাড়ি দিয়া এসেছি। রায় টাই সব কেনা যাবে।

মঙ্গলবার রাকিবের এই অডিও ফেইসবুকে ভাইরাল হলেই শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দেয়। ফলে তাৎক্ষণিক রাত সাড়ে ৮টার দিকে ক্যাম্পাসের জিয়া মোড় এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে শাখা ছাত্রলীগ পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রধান ফটকের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে বক্তারা রাকিবের আদালত অবমাননার প্রতিবাদ ও তার কঠোরের শাস্তির দাবি জানায়। 

এদিকে দেশের সর্বোচ্চ আদালতকে অবমাননার প্রতিবাদে ৩০ অক্টোবর, বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে মানববন্ধন করেন আইন অনুষদের শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা জানান, ‘সম্পাদক রাকিব তার কথোপকথনের মধ্যে দিয়ে বিচার ব্যবস্থাকে অবমাননা করেছে। আদালতকে অবমাননা করা দন্ডনীয় অপরাধ। আমরা তাকে আইনের আওতায় আনতে মাননীয় আইনমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। সাথে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের জোর দাবি জানায় তারা।’

অডিওর বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন, ‘ এই অডিও সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। তাছাড়া এমন কোন কথাও কারো সাথে আমার হয়নি।’

উল্লেখ্য, এর আগে গত ১০ সেপ্টেম্বর সম্পাদক রাকিবের ৪০ লাখ টাকার বিনিময়ে ছাত্রলীগের পদ কিনে আনা সংক্রান্ত একটি অডিও ফাঁস হয়। ওই অডিও ফাঁস হওয়ার পর শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। এরপর থেকে সম্পাদক রাকিব ক্যাম্পাসে আসলে ৪  দফায় ধাওয়া দিয়ে তাকে ক্যাম্পাস ছাড়া করেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। একই সাথে সভাপতি পলাশকেও ক্যাম্পাস থেকে লাঞ্চিত করে বের করে দেয় কর্মীরা। 

বাংলা/এএএ

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0225 seconds.