• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১০:৩৫:৪৩
  • ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১০:৩৫:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

৫৯ মিনিটে ওষুধ পৌঁছে দিবে ‘গোমেড কিট’

জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি : সংগৃহীত

মাত্র ৫৯ মিনিটে গ্রাহকের কাছে ওষুধ পৌঁছে দেয়ার ঘোষণা দিয়ে যাত্রা শুরু করল অনলাইন ভিত্তিক ওষুধ ডেলিভারি প্ল্যাটফর্ম ‘গোমেড কিট’। ওয়েবসাইটের পাশাপশি স্মার্টফোন ভিত্তিক অ্যাপস এ কাজ করবে গোমেড কিট।

১৬ সেপ্টেম্বর, সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গোমেড কিট এর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

অনুষ্ঠানে গোমেড কিট এর সম্পর্কে বলা হয়, ব্যস্ততম শহরে দ্রুত সময়ে ওষুধ পৌঁছে দেয়া এবং প্রেসক্রিপশন বিহীন ওষুধ বিক্রির বিপরীতে প্রেসক্রিপশন দিয়ে ওষুধ কেনার সচেতনতার উদ্দেশ্য নিয়ে তৈরি করা হয় প্ল্যাটফর্মটি। সোহানুর রহমান এবং সৌরভ আজম নামের দুই তরুণ উদ্যোক্তা গড়ে তোলেন গোমেড কিট।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘১০ বছর আগেও দেশের স্বাস্থ্যসেবার যে অবস্থা ছিল তার আমূল পরিবর্তন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই ১০ বছরে স্বাস্থ্যখাতের যে উন্নতি হয়েছে তা আগের ৩০ বছরেও কোন সরকার করতে পারেনি। কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে গ্রামীণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছেছে এখন স্বাস্থ্যসেবা। আর এখন তো টেলি মেডিসিনের সময়।’

গোমেড কিট’র বিষয়ে পলক বলেন, ‘এ ধরনের উদ্যোগ স্বাস্থ্যখাতে আমূল পরিবর্তন আনবে। শিক্ষার সাথে ইন্টারনেটকে জুড়ে দিলে দারুণ কিছু হয়। যার বাস্তব উদাহরণ গোমেড কিট। এবারের বাজেটে প্রধানমন্ত্রী স্টার্টআপ দের জন্য ১০০ কোটি টাকা বাজেট রেখেছে। এমন দেশীয় স্টার্টআপ যেন গ্লোবাল প্ল্যাটফর্মে পরিচিতি পেতে পারে তার জন্য আমাদের তরফ থেকে সার্বিক সহায়তা থাকবে। সফটওয়্যার এবং আর্থিক সহায়তা থাকবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)’র ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম গোমেড কিট'র উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন, ‘ঢাবির ছাত্র সোহানুর রাহমান ও সৌরভ আজমের এই উদ্যেগ ব্যস্ততম শহর ঢাকায় অনেকের উপকারে আসবে। জরুরি প্রয়োজন মেটাতে সবখাতেই এমন সেবা চালু করা প্রয়োজন। তথ্যপ্রযুক্তির যুগে এভাবেই একের পর এক উদ্ভাবনীতে দেশ এগিয়ে যাবে।’

এ বিষয়ে ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর সভাপতি শমী কায়সার বলেন, ‘আইসিটি ইকো সিস্টেমের মধ্যে সার্ভিস ডেলিভারি একটা বড় জায়গা। সেখানে গোমেড কিট একটা বড় ভূমিকা রাখবে বলে আমাদের আশাবাদ। একই সাথে, আমাদের দেশে বিভিন্ন ধরনের রোগ নিয়ে এখন পর্যন্ত সেন্ট্রাল কোন ডাটাবেজ নেই। এই প্ল্যাটফর্মটি তেমন একটি তথ্য ভাণ্ডার হিসেবেও আমাদের সেবা দেবে।’

বর্তমানে শুধু ঢাকা শহরে ২৪ ঘণ্টা কার্যক্রম পরিচালনা করছে গোমেড কিট। পরবর্তীতে এটিকে সারা দেশে ছড়িয়ে দেয়া হবে বলে জানান উদ্যোক্তারা।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- বেসিস এর পরিচালক দিদারুল আলম সানী, উইমেন এন্ড ই - কমার্সের সভাপতি নাসিমা আক্তার নিশা।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0178 seconds.