The path to the image is not correct.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

দাওয়াত না দেওয়ায় ইফতার পার্টি বন্ধ
  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৮ মে ২০১৯ ১৯:৩১:০৩
  • ২৮ মে ২০১৯ ১৯:৩১:০৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

দাওয়াত না দেওয়ায় ইফতার পার্টি বন্ধ

নজরুল ইসলাম বাবু, সাফিজুল হক সাফিজ ও আজাদ। ফাইল ছবি

দাওয়াত না দেওয়ায় ইতালির রাজধানী রোমে বাংলাদেশি প্রবাসীদের আয়োজিত ইফতার পার্টি বন্ধ করে দিয়েছে প্রবাসীদেরই অন্য একটি দল। মঙ্গলবার রোমের মন্তেভেরদে এলাকায় বায়তুন নূর জামে মসজিদে এই ইফতার পার্টি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই অনুষ্ঠান বন্ধের জন্য মসজিদ কমিটি বরাবর লিখিত আবেদন করা হয়।

এর প্রেক্ষিতে মসজিদ কমিটি ইফতার পার্টির অনুমতি বাতিল করে। এ ঘটনায় ইতালির বাঙালি কমিউনিটিতে নিন্দার ঝড় বইছে। অনেকে এটিকে একটি মারাত্মক নেক্কারজনক ঘটনা হিসেবে অবহিত করছেন।

জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের ইতালি প্রবাসী মো. বাসির ও মইনুল এবং তাদের পরিচিতদের উদ্যোগে এই  ইফতার পার্টির আয়োজন করা হয়। এতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সমিতির নেতা নজরুল ইসলাম বাবু, সাফিজুল হক সাফিজ ও আজাদকে দাওয়াত না করায় তারা এতে বিরোধিতা করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়াও তারা এই ইফতার পার্টির বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন অপপ্রচার শুরু করেন।

প্রবাসীরা জানান, তাদের এমন কর্মকাণ্ডে ইতালির স্থানীয় প্রবাসীরা তাদের প্রতি ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত।

এ বিষয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজক মো. বাছির বলেন, ‘ইফতার পার্টির মতো একটি ধর্মীয় আচারে কি করে মানুষ বিরোধিতা করতে পারে এটা আমার বোধগম্য নয়। একটি অনুষ্ঠানে সবাইকে দাওয়াত করা সম্ভব নয়, তাই বলে কি বিরোধিতা করে অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিতে হবে? এটা উচিত নয়, এটা অন্যায়।’

আরেক আয়োজক ইতালি প্রবাসী ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের মইনুল ইসলাম বলেন, ‘অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে অনেক টাকা পয়সা খরচ হয়েছে। কিন্তু অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়াতে আমরা আর্থিক ও সামাজিকভাবে অনেক বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি।’

কবির নামে এক প্রবাসী বলেন, ‘যারা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান বন্ধ করে সমাজে অশান্তি তৈরি করে তাদের সমাজ থেকে বিচ্যুত করা উচিত।’

মসজিদে ইফতার পার্টি করার অনুমতি দেওয়ার পরও কেন তাদের ইফতার পার্টির অনুমতি বাতিল করা হলো এ বিষয়ে জানতে চাইলে বায়তুন নূর মসজিদ কমিটির সভাপতি মনির ভূইয়া এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সমিতির নেতারা এই ইফতার পার্টির বন্ধের জন্য মসজিদে স্থান না দেওয়ার জন্য মৌখিক আবেদন করেন। আমরা সেই আবেদন গ্রহণ না করলে পরে তারা লিখিত অভিযোগ করেন। পরে যে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়ানোর জন্য মসজিদ কমিটি এই অনুষ্ঠানের অনুমতি বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়।’

সেই অভিযোগ পত্রে কি অভিযোগ লেখা ছিল জানতে চাইলে মনির ভূঁইয়া বলেন, ‘সেই অভিযোগপত্রে তাদেরকে দাওয়াত না করার অভিযোগ ছিল। এজন্য অনুষ্ঠান বন্ধের আবেদন জানান তারা।’

শুধুমাত্র গুটিকয়েক ব্যক্তিকে দাওয়াত না করায় ইফতারের অনুমতি বাতিল করা কতটুকু যৌক্তিক, এমন প্রশ্ন করলে মনির ভূঁইয়া এর কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। 

এ বিষয়ে বক্তব্য জানার জন্য অনুষ্ঠান বন্ধে অভিযুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া সমিতির নেতা সাফিজুল হক সাফিজ ও নজরুল ইসলাম বাবুর সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ইতালি ইফতার

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0184 seconds.