• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৫ মে ২০১৯ ১৪:৫২:১৭
  • ২৫ মে ২০১৯ ১৪:৫২:১৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

৩ মুসলিমকে গাছে বেঁধে পেটালো গোরক্ষকরা

ছবি : সংগৃহীত

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয় পেয়েছে মোদির দল বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের এই বিরাট জয়ের পরপরই ভারত জুড়ে শুরু হয়ে গেছে গোরক্ষকদের তাণ্ডব। মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের সিওনিতে গরু পাচারের অভিযোগে এক নারীসহ তিন মুসলিমকে গাছে বেঁধে পেটানো হয়েছে। এ ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নির্যাতীতদের বরাতে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, তাদের শুধু গাছে বেঁধেই পেটানো হয়নি, বাধ্য করানো হয়েছে ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি দিতেও।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, একটি গরু নিয়ে অটো রিকশায় চেপে সিওনি দিয়ে যাচ্ছিলেন এক নারীসহ তিন মুসলিম। কোনোভাবে সেই খবর পৌঁছে যায় গোরক্ষকদের কানে। সঙ্গে সঙ্গে লাঠি, বাঁশ নিয়ে অটো রিকশাটিকে তাড়া করেন গোরক্ষকরা। ধরে ফেলেন অটো রিকশার ওই তিন আরোহীকে। তাদের গাড়ি থেকে নামিয়ে একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে ফেলা হয়। এরপর এক এক করে ধৃতদের বেধড়ক পেটাতে শুরু করেন গোরক্ষকরা। পরে তাদের মাটিতে ফেলেও প্রচণ্ড মারধর করা হয়। বাদ যায়নি ওই নারীও, তাকেও পেটানো হয়েছে। রাস্তায় দাঁড়িয়ে এই মারধরের দৃশ্য উপভোগ করেন পথচারীরা।

তার পরেই ‘জয় শ্রী রাম’ধ্বনি দিতে শুরু করেন গোরক্ষকরা। ওই মুসলিমদেরও বাধ্য করানো হয় ‘জয় শ্রী রাম’ধ্বনি দিতে।

পরে ঘটনাটির ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে এআইএমআইএম দলের প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়াইসি তার টুইটে লেখেন, ‘মোদির ভোটাররা এই ভাবে মুসলিমদের উপর অত্যাচার আবার শুরু করে দিল। এটাই নতুন ভারতের ছবি।’

ললিত শাকিভার নামে স্থানীয় এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ঘটনার ওই ভিডিওটি চার দিন আগের এবং চার জনকে গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরো একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই ঘটনায় অভিযুক্ত শুভম সিংহ নামের এক ব্যক্তি নিজেকে ‘রাম সেনা’ হিসেবে উল্লেখ করে তার ফেসবুকে মুসলিমদের মারার ভিডিও পোস্ট করে। অবশ্য পরবর্তীতে তা সরিয়ে নেয়।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ভারত মুসলিম গরু

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0194 seconds.