• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৭ মে ২০১৯ ১৮:৩৫:৫৯
  • ১৭ মে ২০১৯ ১৮:৩৫:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

৩ দিনও স্থায়ী হলো না ৩ কোটির রাস্তা

ছবি : সংগৃহীত

রাস্তা বানানোর তিন দিনের মাথায় উঠে গেছে বিটুমিন দিয়ে করা কারপেটিং। চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলায় চার কিলোমিটারের রাস্তা নির্মাণ করার পর এ চিত্র দেখা যায়। বৃহস্পতিবার সকালে গ্রামবাসী দেখেন, পিচ দিয়ে ঢালাই রাস্তা কারপেটের মত উঠে যাচ্ছে। মঙ্গলবার (১৪মে) রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়।

এ বিষয়ে স্থানীয় লোকজনের কাছে থেকে জানা যায়, কচুয়া-কাশিমপুর সড়কের মনপুরা গ্রামের ভেতরে চার কিলোমিটার রাস্তা পাকা করার টেন্ডার হয় ২০১৫ সালে। রাস্তাটি করার জন্য প্রায় ৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ২০১৫ সালে কাজ শুরু হলেও দু’বছর ফেলে রাখার পর, আবারো ২০১৯ কাজ শুরু করে শেষ করা হয় এ মাসে।

এছাড়াও এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, নানা অনিয়ম ও নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে কাজ করা হয় কাজের শুরু থেকে। আবার দুই বছর নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখায় রাস্তা দিয়ে চলাচলকারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

এ বিষয়ে এলাকার বাসীন্দা মোহাম্মদ সাকিব বলেন, রাস্তা নির্মাণে ব্যবহার করা ইট, বালু, পাথর সব নিম্নমানের। রাস্তার দু’পাশের রেলিং এর জন্য ভালো মানের ইট ব্যবহার না করে ব্যবহার করা হয় পিকেট, যা মাটি দিয়ে দাঁড় করিয়ে দেয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, ‘ঢালাই দেয়ার আগে রাস্তা পাকা করায় বিটুমিন না দিয়েই পিচ ঢালাই দেয়া হয়।’

কাজটির ঠিকাদার ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সুমন প্রধানীয়া অস্বীকার করে দাবি করেন, এলাকার লোকজন হাত দিয়ে পিচ ঢালাই উঠে ফেলছে।

এ নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির বলেন, ‘অভিযোগ পেয়ে আমি এক কিলোমিটার এলাকা ঘুরে দেখেছি। কাজ নিম্নমানের হওয়ায় পুণরায় এ কাজ করার জন্য উপজেলা প্রকৌশলী সৈয়দ জাকির হোসেনকে নির্দেশ দিয়েছি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিলীমা আফরোজ বলেন, ‘উপজেলা প্রকৌশলীকে বলেছি, নিম্নমানের কাজ বন্ধ করতে। গতকাল কাজ বন্ধ করার পর আজ শুক্রবার আবার সেই নিম্নমানের কাজ শুরু হওয়ার খবর পেয়ে আবার নির্দেশ দিয়েছি, ‘রাস্তার কাজ ঠিকমতো করুন, নইলে এ কাজের বিল বন্ধ থাকবে।’

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0203 seconds.