• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৬ মে ২০১৯ ২১:৪৮:৩৯
  • ১৬ মে ২০১৯ ২১:৪৮:৩৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ট্রাম্পের ইফতার পার্টিতে দাওয়াত পাননি মুসলিম নেতারা

ছবি : সংগৃহীত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন মুসলিম সংগঠন এবং দেশটির মুসলমান আইন প্রণেতাদের বাদ দিয়েই হোয়াইট হাউজে ইফতার পার্টির আয়োজন করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  তার এই পার্টিতে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা মুসলিম দেশগুলোর রাষ্ট্রদূত এবং কূটনীতিকরা ছাড়াও ট্রাম্প প্রশাসনের মুসলমান কর্মকর্তারাও অংশগ্রহণ করেছিলেন।

সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাসভবন হোয়াইট হাউজে রমজান মাস উপলক্ষে এই ইফতার পার্টির আয়োজন করা হয়।   

ডোনাল্ড ট্রাম্প রমজান মাসকে বিশেষ একটি সময় বলে উল্লেখ করেন।  তিনি এই মাসকে দান করার মাস বলেও অভিহিত করেন।  তিনি বলেন, ‘রমজান এমন একটি সময় যখন মানুষজন আশা, সহনশীলতা এবং শান্তির লাভের চেষ্টা করে।  রমজানের এই উদ্দীপনার কারণেই আজ রাতে আমরা একত্রিত হয়েছি। ’

হোয়াইট হাউজে এটি ডোনাল্ড ট্রাম্পের দ্বিতীয় ইফতার আয়োজন।  ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে ক্ষমতা লাভের পর দীর্ঘ ঐতিহ্য ভেঙ্গে তিনি সেবছর কোন ইফতার পার্টির আয়োজন করেননি।  প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন ১৯৯৬ সালে হোয়াইট হাউজে ইফতার পার্টির প্রবর্তন করেছিলেন।  

২০১৮ সালে ট্রাম্প প্রথম ইফতার আয়োজন করেন।  সেসময় তার অতিথির তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম সংগঠনের নেতারা এবং মুসলমান আইন প্রণেতারা স্থান পাননি। এবছরও ট্রাম্প তাদের ইফতারের দাওয়াত দেননি।   

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম সংগঠনগুলোও ট্রাম্পের ইফতার পার্টি বর্জনের ঘোষণা দিয়েছিলেন।  আমেরিকান ইসলামিক রিলেশনস এর নির্বাহী পরিচালক নিহাদ আওয়াদ বলেন, ‘মুসলমান, অভিবাসী বিরোধী একজন প্রেসিডেন্ট যিনি শ্বেত শ্রেষ্ঠত্বের সমর্থক এবং বিভিন্ন সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে বর্ণবাদী নীতি প্রণয়ন করেন, তার সামনে উপস্থিত হওয়াটা আমাদের জন্য খুব অপ্রীতিকর একটি অবস্থার সৃষ্টি হতো। ’

উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট ক্লিনটন, বুশ এবং ওবামার সময়েও হোয়াইট হাউজের ইফতার পার্টিতে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম সংগঠনগুলোর নেতারা উপস্থিত থাকতেন। তবে ইরাক যুদ্ধের সময়ে অনেকেই বুশের ইফতার পার্টি বর্জন করেছিলেন।  

বাংলা/এফকে  

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0190 seconds.