• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৪ মে ২০১৯ ২০:২৫:২৭
  • ১৪ মে ২০১৯ ২০:২৫:২৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

নিরাপত্তাহীনতায় ‘এমএনপি’ গ্রাহক

ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশে ৮ মাস হলো চালু হয়েছে এমএনপি সেবা। কিন্ত এখনো সেবা নিয়ে রয়েছে জটিলতা। মোবাইল নাম্বার অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর পরিবর্তনের সুবিধায় গ্রামীণফোন, রবি, বাংলালিংক ও টেলিটকের গ্রাহকেরা একে অন্যের নেটওয়ার্কে গিয়ে তাদের কলরেট ও ইন্টারনেট প্যাকেজ ব্যবহার করতে পারবেন, কিন্তু নাম্বার থাকবে আগেরটাই।

এই সেবা ব্যবহারের ফলে যেমন সুবিধা রয়েছে তেমনি রয়েছে অসুবিধাও। এমএনপি সেবা যারা ব্যবহার করছে তাদের মোবাইলে লেনদেন করতে গিয়ে পড়তে হচ্ছে সমস্যায়। লেনদেন সম্পন্ন হওয়ার পর সেটির নিশ্চিতকরণ এসএমএস পাচ্ছেন না অপারেটর পরিবর্তনকারী গ্রাহকরা। এতে ভোগান্তির পাশাপাশি লেনদেনের নিরাপত্তা নিয়েও তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরি করেন কারিমুল ইসলাম। তিনি এমএনপি সেবায় যুক্ত হয়েছেন ১ মাস হলো। তিনি বাংলালিংক পরিবর্তন করে রবি’তে সেবা নিচ্ছেন। কিন্ত ১ মাস ধরে তিনি পড়েছেন বিশাল সমস্যায়। মোবাইলে লেনদেন করলে কোন ধরনের এসএমএস পান না তিনি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মোবাইলে লেনদেন ঠিকঠাক মত হলেও কোন ধরনের এসএমএস আসে না ফোনে, ফলে বুঝতে সমস্যা হয় লেনদেন হলো কিনা। পাশাপাশি এর নিরাপত্তা নিয়েও আমি শঙ্কিত।

খাতসংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, এমএফএস (মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের) সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো এ ডাটাবেজের সঙ্গে যুক্ত না হওয়ায় অপারেটর পরিবর্তন করা এমএফএস সেবার গ্রাহকরা লেনদেন সম্পন্নের পর এসএমএস পাচ্ছেন না। এমএফএস সেবার আওতায় থাকা গ্রাহকের বড় অংশই প্রান্তিক আয়ের মানুষ। লেনদেনের পর এ ধরনে নিশ্চিতকরণ এসএমএস না আসায় প্রান্তিক আয়ের মানুষের জন্য ভোগান্তি বাড়িয়ে তুলছে। পাশাপাশি নিশ্চিতকরণ এসএমএস লেনদেনের নিরাপত্তার বিষয়টিকেও ঝুঁকিতে ফেলছে।

শুরুতে অপারেটর পরিবর্তনের খরচ ১৫৮ টাকা থাকলেও পরবর্তী সময়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সিম পরিবর্তনের কর ১০০ টাকা প্রত্যাহার করা হয়। ফলে এমএনপি সেবা নিতে গ্রাহকের ব্যয় কমে দাঁড়িয়েছে ৫৮ টাকায়।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে, মার্চ শেষে মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট রয়েছে ৬ কোটি ৭৫ লাখ। এর মধ্যে সক্রিয় অ্যাকাউন্টের সংখ্যা ৩ কোটি ২৩ লাখ। মাসিক গড় লেনদেন প্রায় ৩৪ হাজার ৬৭৮ কোটি টাকার বেশি। অর্থাৎ দিনে গড়ে ১ হাজার ১১৮ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) বিটিআরসির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এমএনপি সেবা চালুর প্রথম চার মাসে অপারেটর পরিবর্তন করেছেন ১ লাখ ৩৩ হাজার ৬২১ জন গ্রাহক। এর মধ্যে এ সময়ে অন্য অপারেটর থেকে সবচেয়ে বেশি সংযোগ যুক্ত হয়েছে রবির নেটওয়ার্কে।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

এমএনপি শঙ্কিত

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0175 seconds.