• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৩ মে ২০১৯ ১৭:১৭:৫০
  • ১৩ মে ২০১৯ ১৭:১৭:৫০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

মিলেছে অজুহাত, বেড়েছে ইরানে হামলার শঙ্কা

ছবি : পার্স টুডে থেকে নেয়া

সৌদি আরবের দুটি তেলবাহী ট্যাংকার সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপকূলে ‘নাশকতামূলক হামলা’র শিকার হয় বলে দাবি করেছে দেশটি। এই দাবির কারণে ইরান আক্রমণের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। রবিবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফুজায়রা উপকূলে এসব জাহাজ হামলার ঘটনা ঘটে।    

সোমবার সৌদি জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ এক বিবৃতি দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা এসপিএ এ খবর প্রকাশ করেন।

বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন, দুই ট্যাংকারের একটি তেল নিতে সৌদি আরবে আসার পথে ছিল। ‘সৌদি আরমকো’র কাস্টমারের তেল নিয়ে ওই ট্যাংকারের পরে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার কথা ছিল।

সৌদি জ্বালানিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘সৌভাগ্যক্রমে হামলায় কোনো হতাহত এবং তেল ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা ঘটেনি। অবশ্য এতে দুটি ট্যাংকারই বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’

তবে সৌদি আরবকে আগে থেকেই নাবিকদের এ ধরণের হামলার বিষয়ে নতুন করে সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির আঞ্চলিক মিত্র আমিরাতে চারটি জাহাজে নাশকতামূলক হামলার নিন্দা জানায়।

এদিকে রবিবার আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন, দেশটির জলসীমায় চারটি জাহাজে হামলার ঘটনা ঘটেছে। ইরান থেকে ১১৫ কিলোমিটার দূরে বিদেশি বেসামরিক জাহাজে এসব হামলা হয়। স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর সঙ্গে বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে আমিরাত।

ইরানকে ইঙ্গিত করে যখন এসব হামলার দাবি করা হচ্ছে, তখন ইরানের কথিত হুমকির জবাবে মধ্যপ্রাচ্যে সর্বোচ্চ যুদ্ধপ্রস্তুতি নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। পরমাণু কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে অবরোধ আরোপ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে বর্তমানে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

একই সাথে ইরানের পরমাণু কর্মসূচির কারণে দেশটিতে হামলার তোড়জোড় করছে ইসরায়েল। এজন্য সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন আরব দেশগুলোর ‘গ্রিন সিগন্যাল’ আদায় করে নিয়েছে ইসরায়েল।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0178 seconds.