• ০৭ মে ২০১৯ ২১:১৫:০৪
  • ০৭ মে ২০১৯ ২১:১৫:০৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

অথচ সফল সাকিব, মিরাজ

ছবি : সংগৃহীত

সাব কন্টিনেন্টের বাইরে খেলা মানেই নতুন করে পেস নিয়ে ভাবা, ঘষামাজা করে ধার বাড়ানো, সাথে কোচদের নতুন নতুন পরামর্শ। এর ব্যতিক্রম ঘটেনি বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও। ইংল্যান্ড-ওয়েলস বিশ্বকাপকে সামনে রেখে পেসারদের নিয়ে রীতিমত ঘাম ঝরিয়েছে কোচরা। কড়া নজরদারি ছিল ঢাকা প্রিমিয়ার লীগেও।

কাকে রেখে কাকে স্কোয়াডে নেয়া যায়। শুধু তাই না, লোকমুখে প্রচলিত ছিল স্পিনারদের দিয়ে তেমন কিছু হবে না ইউরোপের মাটিতে। 

অথচ নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ মঙ্গলবার সবার ধারণা পাল্টে দিলো সাকিব, মিরাজ। টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে দুই উইন্ডিজ ওপেনার হোপ এবং এ্যামব্রোস গড়েন ৮৮ রানের জুটি। একটা সময় তো আউট করতে না পেরে নাভিশ্বাস উঠে যাচ্ছিলো পেসারদের। ঠিক সেই সময়ই ১৬ তম ওভারে মিরাজকে বোলিংয়ে আনেন মাশরাফি।

অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিতে ভুল করেননি মিরাজ। নিজের দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরের পথ দেখান সুনীল এ্যামব্রেসকে। ঠিক এর পরেই ব্রাভোর উইকেটটিও তুলে নেন সাকিব। শুধু তাই নয়, আজ সবচেয়ে কিপটে বোলিং করেছেন এই দুজন। দুজনেই ১০ ওভার করে বোলিং করেছেন। বিনিময়ে সাকিব দেন ৩৩ রান। পেয়েছেন একটি উইকেট। ইকোনমি রান রেট- ৩.৩৩ । আর মিরাজ ব্যয় করেন ৩৮ রান্। এই অফ স্পিনারেরও শিকার এক উইকেট। উইকেট নেয়ার দিক থেকে এগিয়ে না থাকলেও এই দুই স্পিনারের মিতব্যয়ি বোলিংই মূলত বিপক্ষ দলের সংগ্রহকে বড় হতে দেয়নি।

অথচ স্পিনারদের মতো মিতব্যয়ি বোলিং করতে পারেননি পেসাররা। শুরুতে তো অবস্থা আরো খারাপ ছিল। কিন্তু সাকিব, মিরাজের উইকেট শিকারের পর বাকিরা ঘুরে দাঁড়াতে সক্ষম হয়। তবে শেষ পর্যন্তও রক্ষা হয়নি মোস্তাফিজের। এই কাটার মাসস্টার আজ খরচ করেন ১০ ওভারে ৮৪ রান। যা দলীয় মোট রানের ৩২ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0194 seconds.