• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৬ এপ্রিল ২০১৯ ১৫:৩০:০৪
  • ২৬ এপ্রিল ২০১৯ ১৫:৩০:০৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বেড়েছে পেঁয়াজের দাম, বাড়তে পারে আরো

ছবি : সংগৃহীত

আসন্ন রমজান মাসকে কেন্দ্র করে দু’সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ১০ টাকা। আর বাজারভেদে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ৫ টাকার মতো। শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও এলাকার বিভিন্ন বাজার ঘুরে এ সব তথ্য পাওয়া গেছে।

মূলত রমজানে যেসব পণ্যের চাহিদা একটু বেশি থাকে, সে সব পণ্যের দাম বাড়ার প্রবণতা দেখা যায়। এর মধ্যে পেঁয়াজ, পেঁপে, বেগুন ও শসার দাম সব থেকে বেশী বেড়েছে। একই সাথে সবজি, মাছ ও মাংস অনেক চড়া মূল্যে বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে দেখা যায়, উন্নতমানের দেশি পেঁয়াজ ৫ কেজি বা এক পাল্লা বিক্রি হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা, আগের সপ্তাহে এই দাম ছিল ১২০ টাকা। আর দুই সপ্তাহ আগে এই দাম ছিল ১০০ টাকা। তার মানে মাত্র দুই সপ্তাহের ব্যবধানে এক পাল্লায় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৩০ টাকা।

এ ব্যাপারে বাজারটির ব্যবসায়ী খাইরুল বলেন, ‘রোজার কারণে পেঁয়াজের দাম একটু বেড়েছে, সামনে আরো একটু বাড়তে পারে। তবে গত বছরের তুলনায় এবার পেঁয়াজের দাম বাড়ার প্রবণতা তুলনামূলক কম। কারণ, এবার পেঁয়াজের ফলন খুব ভালো হয়েছে।’

রামপুরা ও খিলগাঁও এলাকার বাজার ঘুরে দেখতে পাওয়া যায়, একই মানের দেশি পেঁয়াজ প্রতিকেজি বিক্রি করছেন ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়, গত সপ্তাহে এই দাম ছিল ২৮ থেকে ৩০ টাকা। আর দুই সপ্তাহ আগে এই দাম ছিল ২৫ টাকা। খুচরা বাজারে পেঁয়াজের এই দাম দু’সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে কেজিতে ১০ টাকা।

এ নিয়ে খিলগাঁওয়ের কাঁচামাল ব্যবসায়ী জামাল হোসেন জানান, কিছুদিন আগে যে পেঁয়াজ ২৫ টাকা কেজি বিক্রি করেছি এখন তা ৩৫ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। কারণ, পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। মূলত রোজার কারণেই পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। হয়তো আরো দাম বাড়বে।

এদিকে বাজারে চড়া মূল্যে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের সবজি। বাজার ও মানভেদে কাঁচা পেঁপে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা কেজি। গত সপ্তাহে অনেক বাজারে কাঁচা পেঁপে প্রতিকেজি বিক্রি হয়েছিলো ৪০ টাকা।

একই সাথে দাম বেড়েছে শসা ও বেগুনের। সপ্তাহের ব্যবধানে শসার দাম প্রতিকেজিতে ৫ টাকার বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। আর গত সপ্তাহে প্রতিকেজি বেগুন ৪০ থেকে ৫০ টাকা বিক্রি হলেও এখন দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা। কেজি বিক্রি হচ্ছে।

বিভিন্ন বাজারে পাকা টমেটো কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৪০ টাকা। তবে গত সপ্তাহে কোনো বাজারে পাকা টমেটোর কেজি ৪০ টাকার নিচে বিক্রি হয়নি।

এদিকে মূল্যে স্থিতিশীল থাকা সবজি প্রতিকেজি- পটল ৪০ থেকে ৫০ টাকা, সজনে ডাটা ৬০ থেকে ৮০, বরবটি ৬০ থেকে ৭০, কচুর লতি ৭০ থেকে ৮০, করলা ৬০ থেকে ৭০, শিম ৪০ থেকে ৬০, ধুন্দুল ৭০ থেকে ৮০, গাজর ৩০ থেকে ৪০, ঢেঁড়স ৪০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে বয়লার মুরগির কেজি আগের সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকা থেকে ১৭৫ টাকায়, লাল লেয়ার মুরগি ২১০ থেকে ২২০ টাকা, পাকিস্তানি কক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৭০ থেকে ২৮০ টাকা কেজি।

গরু ও খাসির মাংসের দামও স্থিতিশীল রয়েছে । বাজারভেদে গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫৩০ থেকে ৫৫০ টাকা কেজি। আর খাসির মাংস ৭৫০ থেকে ৮৫০ টাকা কেজি।

মাছের দামের ক্ষেত্রে তেমন কোনো পরিবর্তন দেখা যায়নি। মাছ প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে- তেলাপিয়া ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা, পাঙাশ ১৫০ থেকে ১৮০, রুই ২৮০ থেকে ৬০০, পাবদা ৬০০ থেকে ৭০০, টেংরা ৫০০ থেকে ৮০০, শিং ৫০০ থেকে ৬০০ এবং চিতল ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

রমজান দ্রব্যমূল্য

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0194 seconds.