• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৩ এপ্রিল ২০১৯ ২২:৩৪:১৮
  • ২৩ এপ্রিল ২০১৯ ২২:৪৬:৩৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ইরানের তেলে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা ইইউ, চীনের

ছবি : সংগৃহীত

ইরানের তেলের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন(ইইউ),তুরস্ক এবং চীন। সোমবার ট্রাম্প প্রশাসন ইরানি তেল কেনার ক্ষেত্রে যে ৮টি দেশ ছাড় পেয়েছিল তাদের সতর্ক করে জানিয়েছে, মে মাস থেকে তাদের আর কোন ছাড় দেয়া হবে না।

মঙ্গলবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গ্যাং শুয়াং এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, চীন যুক্তরাষ্ট্রের এই একতরফা নিষেধাজ্ঞার তীব্র বিরোধিতা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্ত মধ্যপ্রাচ্যের অশান্তি আরো বাড়াবে। এছাড়া আন্তর্জাতিক জ্বালানি বাজারেও অস্থিতিশীলতার সৃষ্টি করবে।  

তিনি জানান, চীন তাদের কোম্পানিগুলোর আইনগত এবং বৈধ অধিকার রক্ষায় অব্যাহতভাবে কাজ করে যাবে।   

ইইউ ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের এই পদক্ষেপের জন্য গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছে।  ইউরোপীয় কমিশনের মুখপাত্র জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক এই পদক্ষেপ ২০১৫ সালে ছয় জাতির সঙ্গে করা ইরানের পারমাণবিক চুক্তির আরো ক্ষতিসাধন করবে। প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র সহ ছয়টি দেশের সঙ্গে যুগান্তকারী এক পারমাণবিক চুক্তি করে ইরান।  কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর ওই চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসে যুক্তরাষ্ট্র।

এরপর গত বছরের নভেম্বরে ইরানের তেলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ট্রাম্প প্রশাসন।  তবে ইরানি তেল আমদানির জন্য ৮টি দেশকে ছয় মাসের জন্য সাময়িকভাবে ছাড় দেয়া হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ছাড় পাওয়া দেশগুলো হলো গ্রিস, ইতালি, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ান, ভারত, তুরস্ক এবং চীন।   

সোমবার যুক্তরাষ্ট্র জানায়, ইরানের তেল আমদানির ক্ষেত্রে সাময়িকভাবে ছাড় পাওয়া দেশগুলো ১ মে থেকে আর কোন ছাড় পাবে না। তাদের সম্পূর্ণভাবেই ইরান থেকে তেল কেনা বন্ধ করে দিতে হবে।  নতুবা নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে হবে বলে সতর্ক করে দেয়া হয়।  

এদিকে তুরস্কও যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।  দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত ছাভুসোলু জানান, এই পদক্ষেপ আঞ্চলিক শান্তি এবং স্থিতিশীলতা আনবে না বরং ইরানের জনগণকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।  

তিনি টুইটারে লিখেন, তুরস্ক এই একতরফা নিষেধাজ্ঞা এবং প্রতিবেশিদের সঙ্গে কিভাবে আচরণ করতে হবে সে ব্যাপারে কোন কিছু আরোপ করা প্রত্যাখ্যান করে।

এদিকে গ্রিস, ইতালি, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া এবং তাইওয়ান ইতিমধ্যেই ইরান থেকে তেল কেনা বন্ধ করে দিয়েছে কিংবা একদম কমিয়ে দিয়েছে। তবে ভারত জানিয়েছে, তারা মার্কিন সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে অন্য কোন দেশ থেকে অপরিশোধিত তেল কিনবে।   

অবশ্য ইরান হুমকি দিয়ে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি নিষেধাজ্ঞা আরো কঠোর করে তবে তারা পারমাণবিক চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেবে।

বাংলা/এফকে

 

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0178 seconds.