• বিদেশ ডেস্ক
  • ২০ এপ্রিল ২০১৯ ২২:০৮:০৮
  • ২০ এপ্রিল ২০১৯ ২২:০৮:০৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সিসির শাসনামলকে দীর্ঘায়িত করতে মিশরে গণভোট

আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসি, ছবি : সংগৃহীত

মিশরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসির ক্ষমতার মেয়াদ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে আয়োজন করা এক গণভোটে ভোট দিচ্ছেন মিশরবাসী।  শনিবার থেকে অনুষ্ঠিত হওয়া এই ভোট তিন ধরে চলবে।

শনিবার সকাল নয়টায় শুরু হয় এই গণভোট।  রাজধানী কায়রোর শহরতলি হেলিওপোলিসে ভোট দেন ৬৪ বছর বয়সি প্রেসিডেন্ট সিসি। মূলত সংবিধানের একটি সংশোধনীর বিষয়ে এই গণভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  এই সংশোধনী যদি গণভোটে গৃহীত হয় তাহলে ২০৩০ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকতে পারবেন সাবেক সেনা প্রধান সিসি।  

সিসির ক্ষমতার মেয়াদ বাড়ানো সংক্রান্ত সংবিধানের এই সংশোধনী মঙ্গলবার মিশরের সংসদে সিংহভাগ ভোটে অনুমোদিত হয়।  

এদিকে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা জানাচ্ছেন, এই সংশোধনীর মাধ্যমে মিশর কর্তৃত্ববাদের পথে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল।  আরব বসন্তের ফলে সৃষ্ট গণ অভ্যুত্থানে একনায়ক হোসনি মোবারকের পতনের আট বছর পর এই গণভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  এই গণভোট সিসিকে আরো কর্তৃত্ববাদী হতে সাহায্য করবে।  

আন্তর্জাতিক অধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এবং ইন্টারন্যাশনাল কমিশন অব জুরিস্টস সংবিধানের এই সংশোধনী প্রত্যাহার করার জন্য মিশর সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।  

নিউইয়র্কভিত্তিক হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানায়, এই সংশোধনীর মাধ্যমে মিশরের কর্তৃত্ববাদী শাসন আরো মজবুত হবে। মৌলিক স্বাধীনতার উপর এরকম অবিরত আক্রমণের ফলে দেশটিতে সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ ভোট অসম্ভব হয়ে পড়বে বলে আশংকা করছে সংঠনটি।  

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে মিশরের প্রথম নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করে ক্ষমতার কেন্দ্রে চলে আসেন তৎকালীন সেনা প্রধান আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসি। এরপর থেকে মিশর শাসন করে আসছেন তিনি।  তার বিরুদ্ধে ভিন্ন মতকে নির্মমভাবে দমনের অভিযোগ রয়েছে।

বাংলা/এফকে  

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0307 seconds.