• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৭ এপ্রিল ২০১৯ ২০:৪০:৩৪
  • ১৭ এপ্রিল ২০১৯ ২০:৪০:৩৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কারাগারে পাঠানো হলো সুদানের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্টকে

ওমর আল বশির, ছবি : সংগৃহীত

সুদানের সামরিক শাসক দেশটির ক্ষমতাচ্যুত সাবেক প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরকে কারাগারে পাঠিয়েছে।  সাবেক প্রেসিডেন্টের পরিবারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র বুধবার এই তথ্য প্রকাশ করেছে।  

নিরাপত্তার কারণে নিজের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রটি জানায়, মঙ্গলবার রাতে ৭৫ বছর বয়সি সাবেক প্রেসিডেন্টকে রাজধানী খার্তুমের কোবের কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।  প্রসঙ্গত, টানা ৩০ বছর ধরে সুদানের শাসন ক্ষমতায় থাকা ওমর আল বশির গত সপ্তাহে সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত হন।   

খার্তুমের উত্তরে কোবের কারাগারের বাইরে থাকা একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, সম্প্রতি কারাগারে ব্যাপক সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া কারাগারের বাইরেও আধাসামরিক বাহিনীর অবস্থান ছিল।   

বৃহস্পতিবার সুদানের সামরিক বাহিনী দীর্ঘদিনের প্রেসিডেন্ট বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর তাকে গ্রেপ্তার করেছিল।  এরপর তাকে কোথায় রাখা হয়েছে সে ব্যাপারে কোন খবর জানা ছিল না। তবে দেশটির নতুন সামরিক শাসক জানিয়েছিলেন, তিনি নিরাপদেই আছেন।

উল্লেখ্য, গত ডিসেম্বরে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে ওমর আল বশিরের সরকারের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ সমাবেশ ঘটে রাজধানী খার্তুমে। পরবর্তীকালে সেই বিক্ষোভই সরকার পতনের আন্দোলনে পরিণত হয়।  তবে বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করে আটক করার পরেও গণবিক্ষোভকে শান্ত করতে পারেনি নতুন সেনা শাসক।  কারণ সুদানের জনগণ একনায়কতন্ত্র থেকে সামরিকতন্ত্রে যেতে নারাজ।  

ফলে বশিরের ক্ষমতাচ্যুতির দিন থেকেই বিক্ষোভকারীরা সেনা কমপ্লেক্সের বাইরে অবস্থান করে বেসামরিক কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি জানাতে থাকেন।  তাদের দাবির মুখে সেনা অভ্যুত্থানে নেতৃত্ব দেয়া সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল আওয়াদ ইবনে আউফ  মিলিটারি কাউন্সিলের প্রধান থেকে পদত্যাগ করেন।   

বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর এই মিলিটারি কাউন্সিলেরই পরবর্তী দুই বছর দেশ শাসন করার কথা ছিল।  এরপর তারা বেসামরিক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু নিজেদের অর্জিত বিজয় সেনাবাহিনী এভাবে মাঝপথ থেকে অপহরণ করে নিয়ে যাবে এটি বিক্ষোভকারীরা কোনভাবেই মেনে নিতে রাজি ছিলেন না। যার ফলে এখনো তারা রাজপথ ছেড়ে যাননি। বরং যত দ্রুত সম্ভব বেসামরিক সরকারের কাছে যেন সেনা কর্তৃপক্ষ ক্ষমতা হস্তান্তর করে তার জন্যই আন্দোলন করে যাচ্ছেন তারা।  

বাংলা/এফকে

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0175 seconds.