• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৪ এপ্রিল ২০১৯ ১৮:০৭:০২
  • ১৪ এপ্রিল ২০১৯ ১৮:০৭:০২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কুমিল্লাতে আমের বিয়ে

আমের বিয়ে। ছবি : সংগৃহীত

শৈশব স্মৃতি প্রত্যেক মানুষের বড় একটা জায়গা দখল করে থাকে। কারণ সেই দিনগুলো হয় খুবই মজার আর আনন্দের। নেই কোনো চিন্তা-ভাবনা, বন্ধুদের সাথে শুধুই নানান রকমের খেলাধুলা,গাছে উঠে ফল খাওয়া, বড়দের সাথে মাছ ধরা, নদীতে গোসল করা। যা সব মানুষের জীবনেই দাগ কাটার মত থেকে যায়।

সেরকম এক ঝাক শিশুদের দেখা মেলে কুমিল্লায়। তারা পহেলা বৈশাখে কচুরিপানার ফুল দিয়ে আমের বিয়ে দেয়। ঠিক পুতুল বিয়ের মত করে। এমন একটি দৃশ্য ধরা পড়ে লাকসাম উপজেলার মনপাল গ্রামে।

সেখানে বৈশাখে শিশুরা কচুরিপানা দিয়ে বিয়ের আসর সাজায়। এরপর দুটি আমকে বর-কনে সাজিয়ে বিয়ে দেয়। এই খেলায় শিশুদের একটি বর পক্ষ হয় আর অন্যটি হয় কনে পক্ষ। তারা মাটি আর পাতা দিয়ে বিয়ের খাবার রান্না করে। আম দুটির বিয়ে দেয়া শেষ হলে তারা আম কেটে খায়।

মজার এই খেলা নিয়ে নাবিলা মোস্তফা নিঝুম নামের এক শিশু বলেন, তার মার কাছ থেকে শুনেছে, পহেলা বৈশাখে আমের বিয়ে হয়। এর আগে আম খাওয়া ভালো নয়। তখন আমে আঠা থাকে। যা মুখের ক্ষতি করে। তাই আমের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কুমিল্লার লেখক ও শিক্ষাবিদ এহতেশাম হায়দার চৌধুরী গণমাধ্যমের কাছে বলেন, ‘ইলিশ পান্তা বাঙালীর সংস্কৃতি নয়। এটা নগর কেন্দ্রীক বাণিজ্যিক সংস্কৃতি। আমরা ছোট বেলায় নতুন বছরে পুকুর থেকে ধরা বা বাজার থেকে আনা বড় মাছ দিয়ে ভাত খেয়েছি। বাড়ির বড় মোরগটি রেখে দেয়া হতো বছরের প্রথম দিন খাওয়ার জন্য।’

তিনি আরো বলেন, ‘ এদিন স্বজনরা এ বাড়ি থেকে ওই বাড়িতে যেতাম। এছাড়া বাদি গাছের গোটা আর আম মুখে পুরে পুকুরের পানিতে ডুব দিয়ে খেতাম। এতে নাকি সারা বছর শরীরে গুটি হবে না বলে মুরব্বিরা বলতেন। আর বিকালে সবাই মিলে মেলায় যেতাম।’

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

আম বিয়ে কুমিল্লা

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0212 seconds.