• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৭ এপ্রিল ২০১৯ ২১:৩৯:১৭
  • ০৭ এপ্রিল ২০১৯ ২১:৩৯:১৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

গোলান মালভূমিকে ইসরায়েলের বলে স্বীকৃতি দেয়ার কারণ জানালেন ট্রাম্প

ছবি : সংগৃহীত

ইসরায়েল অধিকৃত সিরিয়ার গোলান মালভূমিকে ইসরায়েলের অংশ বলে স্বীকৃতি দেয়ার বিষয়টি আকস্মিক একটি সিদ্ধান্ত ছিল বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  তিনি এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের নেপথ্যের ঘটনারও বর্ণনা দিয়েছেন।  

শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে রিপাবলিকান ইহুদী জোটের এক সম্মেলনে ট্রাম্প এই তথ্য প্রকাশ করেন। সেসময় তিনি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুকে সমবেত আমেরিকান ইহুদীদের প্রধানমন্ত্রী বলে উল্লেখ করেন।  সম্ভবত তিনি ইহুদী এবং ইসরায়েলিদের মধ্যে যে ফারাক রয়েছে সেটি তাৎক্ষণিকভাবে ভুলে গিয়ে থাকবেন।     

ট্রাম্প জানান, মধ্যপ্রাচ্যের শান্তিবিষয়ক আলোচনার শীর্ষ উপদেষ্টাদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি হঠাৎ করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।  এসময় ইসরায়েলে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ডেভিড ফ্রাইডম্যান এবং তার জামাতা জারেড কুশনারও ছিলেন। প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার কাজে ট্রাম্প কুশনারকে নিয়োগ দিয়েছেন।      

লাস ভেগাসে উপস্থিত ইহুদীদের কাছে হাস্য রসিকতার সঙ্গে ট্রাম্প গোলান মালভূমির সিদ্ধান্ত গ্রহণের নেপথ্য কারণ বর্ণনা করেন।  তিনি বলেন, ‘আমি বললাম, আমাকে একটু সাহায্য কর।  দ্রুত আমাকে একটি ইতিহাস তৈরি করতে দাও। আমি খুব দ্রুত কাজ করতে চাই।  আমি এখন অনেক বিষয় নিয়ে কাজ করছি যেমন চীন, উত্তর কোরিয়া। আমাকে খুব দ্রুত কিছু করতে দাও। ’

ট্রাম্প জানান, তিনি যখন গোলান মালভূমিকে ইসরায়েলের অংশ বলে স্বীকৃতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তখন ডেভিড ফ্রাইডম্যানের অভিব্যক্তি দেখে মনে হয়েছিল তিনি যেন প্রচন্ড একটি ধাক্কা খেয়েছেন।    

মার্কিন প্রেসিডেন্ট উল্লেখ করেন, অবশেষে সিদ্ধান্তটি গৃহীত হয়।  তিনি নিজের সিদ্ধান্ত গ্রহণের দ্রুততার বিষয়ে প্রশংসা করে বলেন, ‘আমরা দ্রুত সিদ্ধান্ত নিই এবং আমরা ভালো সিদ্ধান্ত নিই। ’   

গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র সফর করেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু। ২৫ মার্চ নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠকের সময় ট্রাম্প গোলান মালভূমিতে ইসরায়েলের সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি দিয়ে একটি ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেন।  ট্রাম্পের এই পদক্ষেপে বিশ্বজুড়ে শোরগোলের সৃষ্টি হয়।  ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জাতিসংঘ এবং মুসলিম দেশগুলিসহ বিশ্বের কোন দেশই ট্রাম্পের এই পদক্ষেপের স্বীকৃতি দেয়নি। অনেকেরই ধারণা,ইসরায়েলের আসন্ন নির্বাচনে নেতানিয়াহু যেন পুনরায় নির্বাচিত হতে পারেন সেজন্য ট্রাম্প গোলান মালভূমির ব্যাপারে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলি ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে।  এসময় সিরিয়ার গোলান মালভূমি দখল করে নেয় ইসরায়েল।  এরপর ১৯৮১ সালে এই মালভূমির উপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে তারা। যদিও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ইসরায়েলের এধরনের  অবৈধ কর্মকাণ্ডকে কখনোই স্বীকৃতি দেয়নি।

বাংলা/এফকে

 

 

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0195 seconds.