• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৭ মার্চ ২০১৯ ১৫:০০:৪৩
  • ১৭ মার্চ ২০১৯ ১৫:০০:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

হামলাকারীকে ঠেকাতে যাওয়া সেই পাকিস্তানির মৃত্যু

নইম রশিদ। ছবি : সংগৃহীত

ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে ঢুকে ব্রেন্টন ট্যারান্ট যখন এলোপাথাড়ি গুলি চালাচ্ছিল তখন তাকে জাপটে ধরে আটকানোর চেষ্টা করছেন এক অসমসাহসী মানুষ। তিনি না আটকালে নিহতের সংখ্যা আরও অনেক বাড়ত। শনিবার জানা গেছে ওই ব্যক্তির পরিচয়। তিনি পাকিস্তানের অ্যাবটাবাদ থেকে আসা নইম রশিদ।

রাতে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। গতকালই নইমের ছেলে তালহা রশিদ প্রাণ হারিয়েছিলেন। বাকি অনেকের জীবন বাঁচিয়ে চলে গেলেন নইমও। নিউজ়িল্যান্ডবাসীরা তো বটেই, গোটা পৃথিবীর চোখেই তিনি এখন মানবতার নায়ক। শনিবার দিনভর তার কথা টুইটারে এক নম্বরে।

প্রত্যক্ষদর্শী ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফয়জল সৈয়দ জানিয়েছিলেন, কীভাবে মসজিদে গুলিবৃষ্টির মধ্যেই ‘জনৈক ব্যক্তি’ ছুটে এসে আততায়ীকে জাপটে ধরেন। বন্দুক না নামানো অবধি চেপে ধরে রাখেন। ফয়জল বলেছিলেন, তিনি যে বেঁচে গিয়েছেন তা ওই মানুষটির জন্যই। তাঁকে খুঁজে পেতে চান তিনি। সে আর হল না। ব্রেন্টনের গুলিতে মারাত্মক জখম হয়েছিলেন নইম। কাল গভীর রাতেই তার মৃত্যু হয়।

অ্যাবটাবাদে থাকাকালীন একটি বেসরকারি ব্যাংকে চাকরি করতেন নইম। পরে শিক্ষকতার চাকরি নিয়ে নিউজ়িল্যান্ডে চলে যান। নইম এবং তালহা-র মৃত্যুর খবর সংবাদমাধ্যমকে জানান নইমের দাদা খুরশিদ আলম। পাকিস্তানের এক মন্ত্রীর মুখপাত্র মহম্মদ ফয়জল জানান, আরো ৯জন পাকিস্তানির খোঁজ মিলছে না।

আল নূর মসজিদের পরে কাছের লিনউড মসজিদেও হামলা চালায় ব্রেন্টন। সেখানেও এক ব্যক্তি প্রাণপণে তাকে আটকানোর চেষ্টা করেছিলেন বলে জানাচ্ছেন প্রত্যক্ষদর্শী সৈয়দ মাজহারউদ্দিন। এখানে আততায়ীর হাত থেকে বন্দুক কেড়ে নিতে পেরেছিলেন এক জন। কিন্তু বন্দুক চালাতে জানতেন না তিনি। সেই ফাঁকে আততায়ী ছুটে গাড়িতে উঠে পড়ে।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0178 seconds.