• ফিচার ডেস্ক
  • ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১৫:১৯:৪২
  • ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১৫:১৯:৪২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

দুপুরে ভাত খেয়ে ঘুমালে হয় উপকার?

ছবি : সংগৃহীত

দুপুরে ‘ভাত-ঘুম’-এর প্রতি বাঙালিদের একটা বিশেষ দুর্বলতা রয়েছে। বর্তমানে চূড়ান্ত কর্মব্যস্ততায় বছরের বেশির ভাগ দিনেই ভাত-ঘুমের সুযোগ পাওয়া যায় না। তবে ছুটি-ছাটায় সুযোগ পেলেই ‘ভাত-ঘুম’-এর জন্য বান্ধবীর সঙ্গে ডেট বা স্ত্রীর সঙ্গে শপিং ইত্যাদি অনায়াসেই কাটিয়ে দিতে পারেন বাঙালিরা।  

কিন্তু জানেন কি, এই ভাত-ঘুম আমাদের শরীর-মনের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী! একাধিক গবেষণায় সামনে এসেছে ভাত-ঘুমের বেশ কয়েকটি উপকারীতা। 

আসুন জেনে নিন সেগুলি সম্পর্কে....

১) একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, প্রতিদিন অন্তত ২০ মিনিটের ভাত-ঘুম বা ‘ন্যাপ’ আমাদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

২) একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ঘুম কম হলে আমাদের শরীরে কর্টিসোল হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যায়। এই হরমোনর প্রভাবে বেড়ে যায় মানসিক চাপ। দিনের বেলা অল্প সময়ের জন্য হলেও এই ভাত-ঘুম বা ‘ন্যাপ’ আমাদের শরীরে সক্রিয় কর্টিসলের ক্ষরণ কমাতে সাহায্য করে। ফলে মানসিক চাপ কমে যায়।

৩) অফিসে হোক বা বাড়িতে, আপনি যেখানে যে কাজ করছেন, সে কাজেই প্রয়োজন মনসংযোগ আর সজাগ দৃষ্টির। একটি মার্কিন গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, ৪০ মিনিটের ভাত-ঘুম বা ‘ন্যাপ’ যে কোনও কাজেই আমাদের ১০০ শতাংশ সজাগ আর সতেজ করে তোলে। গবেষকদের দাবি, শরীর চাঙ্গা আর তরতাজা রাখতে প্রতিদিন অন্তত ২০ মিনিটের ভাত-ঘুম বা ‘ন্যাপ’ প্রয়োজন।

৪) বিশেষজ্ঞদের মতে, কাজের ফাঁকে অন্তত মিনিট কুড়ির ভাত-ঘুম বা ‘ন্যাপ’ সৃজনশীলতা বাড়াতে সাহায্য করে।

৫) কাজের ফাঁকে মিনিট কুড়ির ভাত-ঘুম বা ‘ন্যাপ’ আমাদের পঞ্চ ইন্দ্রিয়কে আরও সজাগ, সক্রিয় করে তোলে। এর ফলে কাজ করার ক্ষমতা বেড়ে যায় আর কাজের মানও উন্নত হয়।

বাংলা/এবি

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

দুপুর ভাত ঘুম

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0184 seconds.