• বিদেশ ডেস্ক
  • ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১১:২৭:৪৩
  • ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১১:২৭:৪৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

অপারেশন শেষে পেটে কাঁচি রেখে সেলাই

ছবি : সংগৃহীত

তিন মাস আগে হাসপাতালে পেটের অপারেশন শেষে বাড়ি ফিরেছিলেন ভারতের হায়দরাবাদের ৩৩ বছর বয়সী। তবে অপরেশনের পর থেকে পেটে ব্যথা কমেনি তার। ভেবেছিলেন মাত্রইতো অপারেশন হলো, কয়েকদিন পর কমে যাবে। কিন্তু তিন মাসেও কমছে না পেটের ব্যাথা। শেষমেশ আবার ডাক্তারের কাছে গেলে এক্স-রেতে ধরা পরে, তার পেটের ভেতর রয়েছে একটি অপরেশনের কাঁচি। আর এ কারণেই যন্ত্রণা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, হায়দরাবাদের বিখ্যাত নিজাম ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সে (এনআইএমএস) এই নারী তিন মাস আগে অস্ত্রোপচারের জন্য ভর্তি হন। হাসপাতাল থেকে ছুটি হয়ে যাওয়ার পরে বাড়িতে ফেরার পর থেকেই তিনি পেটের মারাত্মক যন্ত্রণায় ভুগতে থাকেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ফের তাকে ওই হাসপাতালেই নিয়ে যাওয়া হয় এবং এক্স-রে করানো হয়। এক্স-রে রিপোর্ট দেখেই চমকে ওঠেন তার আত্মীয়-স্বজন এবং চিকিৎসকরা।

ওই রিপোর্টেই দেখা যায়, ওই নারীর পেটের মধ্যে রয়েছে একটি ডাক্তারি কাঁচি। চিকিৎসক ভুল করে পেটের মধ্যে অস্ত্রোপচারের ছুরি-কাঁচি রেখেই সেলাই করে দিয়েছিলেন। অবিলম্বে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রোববার সকালেই ফের অস্ত্রোপচার করে ওই যন্ত্রটি বের করা হয়।

এনআইএমএসের পরিচালক কে মনোহর এনডিটিভিকে বলেন, ‘রোগী আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমরা রোগীর স্বাস্থ্য সমস্যা মিটিয়ে দিতে ওই উপকরণটি বের করে দিচ্ছি।’

পূর্বের অস্ত্রোপচারটি করেছিলেন সার্জিক্যাল গ্যাস্ট্রোএন্ট্রোলজি বিভাগের একজন শল্য চিকিৎসক। হাসপাতালের তরফে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের খবরে জানানো হয়েছে, ওই নারীর স্বামী দু’জন ডাক্তারের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0196 seconds.