• ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১৮:৫৮:৫২
  • ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ১৯:২৮:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বই মেলার স্লোগানের অংকে ‘চেতনা’র হিসেব-নিকেশ

ছবি : সংগৃহীত


ইমরান হাবিব রুমন :


বরিশাল জামালপুর ঘুরে আজ (বুধবার) সকালে ঢাকায় ফিরলাম। সকালে মধুর ক্যান্টিনে যাওয়ার সময় দোয়েল চত্ত্বর থেকে টিএসসি পর্যন্ত রাস্তার সাজসজ্জায় মনটা ভরে গেল। আমাদের প্রিয় বইমেলা। আমাদের রক্তে, সংস্কৃতিতে মিশে আছে আমাদের বই মেলা। ঢাকায় থাকলে প্রায় প্রতিদিনই টিএসসি, বইমেলায় যাওয়া হয়।

এবারে অসংখ্য ডিজিটাল ফেস্টুনে সাজানো হয়েছে রাস্তার দুধার। 'অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯' লোগোটা বেশ ভাল লাগলো। তবে লোগোটার উপরেই রোমান হরফে হিজিবিজি লেখাটার প্রাসঙ্গিকতা বুঝলাম না। বা এটার প্রয়োজনীয়তা।

ফেন্টুনের উপরের চোখ যেতেই মনটা ভরে গেল। অংক মানে ম্যাথম্যাটিকস।
(১৯)৫২ - (১৯)৭১ = (২০)১৯... আহা

ছোটবেলার কথা মনে পড়ে গেল। ঝাঁ ঝাঁ রোদে দুপুর বেলায় অবসরে ঘরের মধ্য শুয়ে শুয়ে অংক করতাম। কারও চোখ রাঙানিতে না, আনন্দে। অংক আমার কাছে ছিল একটা খেলা, একটা আনন্দ। তাই বই মেলার মতো আমাদের দেশীয় সাংস্কৃতির একটা গুরুত্বপূর্ণ আয়োজনের মূল শ্লোগানে অংক দেখলে আমার মনটা খুশিতে নেচে উঠবে এটাই তো স্বাভাবিক।

কিন্তু ভালমতো অংকটা দেখার পর কেমন যেন খটকা লাগলো। আচ্ছা, কি বুঝাতে চেয়েছে এই অংকে। নিশ্চয়ই গুরুগম্ভীর কিছু। নইলে তো কোন একটা ভাল শ্লোগান বা কবিতার দুটো লাইন যেগুলো পড়লে সাথে সাথে শরীরের লোমগুলো দাঁড়িয়ে যায় তেমন কিছু বাদ দিয়ে এই অংকের শ্লোগান কেন!

(১৯)৫২ - (১৯)৭১= (২০)১৯
৫২, ৭১ এবং ১৯ কে বড় করে লাল সবুজ করা হয়েছে। অর্থাৎ ৫২-৭১=১৯ বুঝানো হয়েছে। যদিও অংকটা ভুল। হয় ৭১-৫২=১৯ হতো অথবা ৫২-৭১= (-) ১৯ হবে। (-) দেয়া হয়নি।

অংক ব্যবহারে খুব খুশি কিন্তু ভাবার্থ বোঝার জন্য চেষ্টা করছিলাম। রাজু ভাষ্কর্য পার হতেই 'ইউরেকা' বলে চিৎকার করে উঠলাম।

রিক্সাওয়ালা ভাইটি অবাক হয়ে পিছনে তাকাতে একটু লজ্জাও পেয়ে গেলাম। তাইতো, ঐ মাতৃভাষার এই মাসে রোমান হরফের মতো আমার রিক্সাওয়ালা ভাইটি তো 'ইউরেকা' মানেও বোঝে না।

তবে আমি খুঁজে পেয়েছি। কিন্তু কতটুকু সঠিক সেটা বোঝার জন্য আপনাদের শরণাপন্ন হলাম।
(১৯)৫২ - (১৯)৭১ = (২০)১৯ মানে
৫২ (চেতনা) - ৭১(চেতনা) = ১৯ (আজকের চেতনা)। আর যদি -১৯ হয় তাহলে, (-) মানে তো উল্টো পথে হাঁটা।

আমার অংক মিলে গেলো, বায়ান্নর চেতনা থেকে একাত্তরের চেতনা বিয়োগ করলে আজকের চেতনা পাওয়া যাবে।

আহা... কি আরাম..!! ছোট বেলার দুপুরে অংক মিলানোর আনন্দটা কতদিন পর পেলাম।

মধুর কেন্টিনে চা খাচ্ছিলাম। হঠাৎ আরেকটা বিষয় মাথায় আসলো, সেটাও অংক!
আচ্ছা,
(১৯)৭১ - (১৯)৯০ = (২০)১৯ এটাও তো লেখা যায়। একাত্তের চেতনা বিয়োগ নব্বয়ের চেতনা সমান সমান আজকের চেতনা।

সত্যিই তো আমাদের বর্তমান চেতনার যথার্থতা তুলে ধরতে এরচেয়ে নান্দনিক সময়োপযোগী অংক আর কি হতে পারে...!!

ধন্যবাদ বাংলা একাডেমি, ধন্যবাদ বইমেলা।

লেখক: সভাপতি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

একুশে বইমেলা অংক

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0749 seconds.