• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১০ জানুয়ারি ২০১৯ ২২:৫৪:৩৩
  • ১১ জানুয়ারি ২০১৯ ১১:০৭:১৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

শ্রমিকদের অভিযোগ শুনতে ‘হট লাইন’

ফাইল-ছবি

শ্রম সচিব আফরোজা খান বলেছেন, “আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, শ্রমিকরা যাতে কোনো ধরনের সমস্যা, সেটা তার বেতন হোক, যে কোনো অধিকার থেকে বঞ্চিত হওয়ার বিষয় হোক, তাৎক্ষণিকভাবে যাতে অভিযোগ করতে পারে, সেজন্য হটলাইন থাকবে, সেটা ২৪ ঘণ্টা চালু থাকবে।”

কলকারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তরে এই ‘হট লাইন’ স্থাপন করা হবে জানিয়ে আফরোজা বলেন, “একজন শ্রমিক সরাসরি তার যে কোনো সমস্যা জানাতে পারব। এখন একটা নম্বর দিয়ে শুরু করা হবে, আগামী সপ্তাহে এই নম্বর বাড়ানো হবে। আমরা মাইকিং করে সব শিল্প এলাকায় সেই নম্বরগুলো শ্রমিকদের জানিয়ে দেব।”

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মজুরি কাঠামো পর্যালোচনা কমিটির প্রথম সভার পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

আফরোজা বলেন, ‘গতবছর ঘোষিত পোশাক শ্রমিকদের জন্য নতুন মজুরি কাঠামোর সাতটি গ্রেডের মধ্যে ১, ২, ৬ ও ৭ গ্রেডে সমস্যা নেই। ৩, ৪ ও ৫ নম্বর গ্রেডে একটু অবজারভেশন আছে, সেটা আমলে নিয়েছি।’

শ্রম সচিব বলেন,“এখানে যেহেতু ক্যালকুলেশনের ব্যাপার আছে, সেজন্য আরও গভীরভাবে পর্যালোচনার জন্য আরও ছোট পরিসরে আগামী রোববার বসে সেটার সমাধান খুঁজে বের করব। কোথায়, কীভাবে করলে সেই সমন্বয়টা আমরা করতে পারি, যাতে এই সমস্যা সমাধান হয়…।”

মজুরি কাঠামো নিয়ে টানা কয়েক দিন ধরে শ্রমিক বিক্ষোভের প্রেক্ষাপটে বুধবার শ্রম সচিবকে প্রধান করে ১২ সদস্যের এই পর্যালোচনা কমিটি করে শ্রম মন্ত্রণালয়। সেখানে মালিক পক্ষের পাঁচজন, শ্রমিক পক্ষের পাঁচজন ছাড়াও বাণিজ্য সচিবকে সদস্য করা হয়।

কমিটির সদস্যদের নিয়ে বৃহস্পতিবার বৈঠকে বসার আগে মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের নিয়ে শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ানের সঙ্গে দেড় ঘণ্টা বৈঠক করেন শ্রম সচিব।

বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় পর্যন্ত পর্যালোচনা কমিটির বৈঠক শেষ না হওয়া শ্রম প্রতিমন্ত্রী তার কক্ষেই অবস্থান করেন।

সভা শেষে ব্রিফিংয়ে এসে শ্রম সচিব বলেন, “শ্রমিক ভাই-বোনদের প্রতি আহ্বান জানাতে চাই, ৮ তারিখে সিদ্ধান্ত নিয়ে ১০ তারিখে মিটিংয়ে বসেছি, সবার কাছ থেকে আমরা শুনেছি সমস্যাগুলো কোথায়।

“আপনারা প্লিজ সরকারের প্রতি আস্থা রাখুন। এ সরকার নতুন এসেছে… এটা সব সময়ই শ্রমিকবান্ধব সরকার… সরকার এ বিষয়ে খুব সিরিয়াস, আমরা খুব সিরিয়াসলি চেষ্টা করছি। যে কাজটা করতে হচ্ছে, সেজন্য ন্যূনতম সময় প্রয়োজন, আমরা শ্রমিক ভাই-বোনদের কাছে সেই সময়টুকু চাচ্ছি।”

বাংলা/এআর

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0197 seconds.