• বিদেশ ডেস্ক
  • ২২ ডিসেম্বর ২০১৮ ১৮:০২:৩৮
  • ২২ ডিসেম্বর ২০১৮ ১৮:০২:৩৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

অচল হওয়ার পথে মার্কিন প্রশাসন

ছবি : সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকার অচল হতে চলছে। মূলত মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করার জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অর্থের দাবি পূরণ নিয়ে কোনো সুরাহায় পৌঁছতে না পারার কারণে সরকারের খরচের বিল পাস ছাড়াই কংগ্রেস স্থগিত করা হয়। ফ্রান্স ভিত্তিক সংবাদ সংস্থা এএফপি এই খবর প্রকাশ করে।

গত সপ্তাহে মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে আগামী বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সরকারের সব বিভাগের জন্য প্রয়োজনীয় বাজেট বরাদ্দের একটি বিল অনুমোদন করেছিল।

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ না থাকায় ট্রাম্প বিলটিতে সই করতে অস্বীকৃতি জানান। ট্রাম্প ঐ বিলে দেয়াল নির্মাণের জন্য অতিরিক্ত ৫৭০ কোটি ডলার অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছিলেন।

ফলে হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তা ও উভয় পার্টির কংগ্রেস নেতাদের মধ্যে আলোচনা অব্যাহত থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার কার্যক্রম বন্ধ হতে চলছে।

এ নিয়ে চলতি বছরে তৃতীয়বারের মত অচল হবে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। তবে কতদিন এটা স্থায়ী হতে পারে তা পরিস্কার নয়। তবে বার্তা সংস্থাটি জানিয়েছে শনিবার থেকে এ অচলাবস্থা কার্যকর হবে।

অপর দিকে শুক্রবার রাতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, এই অচলাবস্থা বেশিদিন থাকছে না। আর দীর্ঘস্থায়ী হলেও তাতে তার সরকার প্রস্তুত রয়েছে। এর ফলে ক্রিসমাসের ছুটির আগে কেন্দ্রীয় সরকারের ৮ লাখ কর্মচারীকে পয়সা ছাড়াই কাজ করতে হতে পারে অথবা তাদের কাজ থেকে অব্যাহতি দেয়া হতে পারে।

এই অচল অবস্থা নিরসনের জন্য কোনো স্বীদ্ধান্ত ছাড়াই শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটায় প্রতিনিধি পরিষদের অধিবেশন স্থগিত করা হয়। এতে প্রেসিডেন্টের এর চাহিদার সঙ্গে পার্লামেন্ট সদস্যদের মতবিরোধের কারণে চলতি বছর তৃতীয়বারের মত সরকার অচল হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করে। যার ফলে স্বরাষ্ট্র, যাতায়াত, কৃষি, পররাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রণালয় এবং ন্যাশনাল পার্ক অ্যান্ড ফরেস্ট বিভাগের লাখ লাখ কর্মী বেকার হবে বলে জানায় বিবিসি।

প্রতিনিধি পরিষদে রিপাবলিকান আধিপত্য থাকার পরও দেয়াল নির্মাণে পর্যাপ্ত বরাদ্দ না পেয়ে ট্রাম্পের ক্রুদ্ধ হওয়ার পেছনে এক ধরণের ভয় কাজ করছে বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা। এবং মধ্যবর্তী নির্বাচনে জয়লাভ করে ডেমোক্রেটরা প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ফিরে পাওয়ায় আগামী বছরের শুরু থেকে নিম্নকক্ষে যে কোনো বিল অনুমোদন করাতে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অনেক বেগ পেতে হবে।

প্রতিনিধি পরিষদে অনুমোদন পাওয়ার পর প্রেসিডেন্টের সইয়ের জন্য বাজেট বিলটি সিনেটে উত্থাপন করা হবে আর সেখানে অন্তত ৬০ ভোট পেতে হবে । তাছাড়াও উচ্চকক্ষে রিপাবলিকানরা সামান্য ব্যবধানে সংখ্যাগরিষ্ঠ হওয়ার কারণে বাজেট অনুমোদনের জন্য ডেমোক্রেট সিনেটরদের ভোটের দরকার হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট সতর্ক করে বলেন, ডেমোক্রেটরা যদি সহায়তা প্রদানে রাজি না হয়, তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারের অচল অবস্থা দীর্ঘয়িত হতে পারে ধরে। শুক্রবার সারাদিন এটা নিয়ে ক্যাপিটল হিলে উত্তেজনা বিরাজ করে।

ট্রাম্প তার এক টুইটারে মেক্সিকো সীমান্তে নির্মাণ করতে চাওয়া দেয়ালটির একটি নকশার ছবি প্রকাশ করে। তিনি তার নির্বাচনী প্রচারে ঐ সীমান্তে মেক্সিকোর খরচে দেয়াল নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে মেক্সিকো শুরু থেকে এই দেয়াল নির্মাণের অর্থ দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছে।

এই বিষয়ে ডেমোক্রেট দলেন আইনপ্রণেতারা বলেন, মার্কিন জনগণের করের টাকায় ট্রাম্পকে দেয়াল নির্মাণ করতে দেয়া হবে না।

এই পরিস্থিতে ট্রাম্প বলেন, আজ রাতে সরকার অচল হোক কিংবা না হোক, সব দায় ডেমোক্রেটদের। আমাদের প্রত্যাশা সরকার অচল হবে না। কিন্তু দীর্ঘদিনের অচলাবস্থার জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি।

এদিকে সিনেটের সদস্যরা সাংবাদিকদের বলেছেন, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স, ট্রাম্পের জামাতা জারেড কুশনার ও হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা প্রয়োজনীয় অর্থ ছাড়ের কংগ্রেসের নেতৃবৃন্দদের সাথে পর্দার আড়ালে আলোচনা চালিয়েছে যাচ্ছে।

বাংলা/এনএস/এনএন 

 

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

মার্কিন প্রশাসন অচল

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0200 seconds.