• বিনোদন প্রতিবেদক
  • ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ ২০:০৬:৫৭
  • ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ ২০:০৬:৫৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কোটি টাকা উঠছে কার হাতে?

ছবি : সংগৃহীত

শ্বাসরুদ্ধকর প্রতীক্ষার পালা শেষ হবে বিজয় দিবসে, ১৬ ডিসেম্বর রাত ১০টায়। কারণ, এই রাতে কোটি টাকা জয়ের জন্য লড়বেন চার মেধাবী—প্রীতীশ, শামীম, বেনজির ও মহসিন।

আইএফআইসি ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভিতে সম্প্রচারিত ৪৭ বছরে বাংলাদেশের অর্জন, সাফল্য, ব্যর্থতা নিয়ে আড়াই মাস ধরে চলা জ্ঞানভিত্তিক কুইজ প্রতিযোগিতা ‘বাংলাদেশ জিজ্ঞাসা’র চূড়ান্ত পর্ব হচ্ছে এটি।

আশি হাজার প্রতিযোগী থেকে ৪ জন লড়বেন কোটি টাকার পুরস্কারের জন্য। তাদের একজন প্রীতীশ। তার ভাষায়, ‘দারিদ্র্য কী জিনিস সেটি আমার চেয়ে ভালো কেউ উপলব্ধি করতে পারেনি।’ বরিশালের ছেলে প্রীতীশ অষ্টম শ্রেনিতে পড়ার সময় তার বাবা প্যারালাইজড হয়ে যান। তারপর নিজের প্রচেষ্টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি অতিক্রম করে বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা হয়েছেন তিনি।

‘বাংলাদেশ জিজ্ঞাসা’র চূড়ান্ত পর্বে তার সাথে লড়বেন নরসিংদীর ছেলে শামীম আহমেদ। নিজের লালিত স্বপ্ন পূরণে বাংলাদেশ জিজ্ঞাসা তার জন্য এক যুতসই প্ল্যাটফর্ম উল্লেখ করে শামীম বলছেন, ‘অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ স্যারের একটা কথা- মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়। এই কথাটা আমাকে আলোড়িত করেছে। তাই আমি আমার স্বপ্ন পূরণে লড়ছি।’ তবে কী তার স্বপ্ন? সেটি তিনি এখনই বলতে চাননি!

ঝিনাইদহের ছেলে বেনজির আহমেদ চূড়ান্ত পর্বে অংশ নেবেন। শৈশবে আগুনে পুড়ে যাওয়া বেনজির মাদরাসায় পড়াশোনা করেছেন। উচ্চ মাধ্যমিকের পর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন। বেনজির মায়ের শিক্ষানুরাগী মনের দিকটি বিবেচনায় এনে ঝিনাইদহে নিজ গ্রামে গড়ে তোলেন পাঠাগার। এর জন্য তিনি নিজে মাটি কেটে পাঠাগারের ভিটা ঠিক করেছেন। জীবনের অর্জন উপার্জন দিয়ে তিনি তার এলাকায় পাঠাগার ও শিক্ষা উন্নয়নে কাজ করবেন বলে জানান।

পিরোজপুরের ছেলে মহসিন আহমেদ বলছেন, ‘গুণগত শিক্ষার মাধ্যমে সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনা সম্ভব।’ তিনি পথশিশু ও নারী শিক্ষার আলো পিরোজপুরে এবং ধীরে ধীরে সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চান।

ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের ‘আজকের বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানের সঞ্চালক খালেদ মুহিউদ্দিনের প্রশ্নের মুখোমুখি হবেন এই প্রতিযোগীরা। অনুষ্ঠানটির প্রযোজক নায়লা পারভীন পিয়া।

খালেদ মুহিউদ্দিন জানান, সারা দেশের ৮০ হাজার প্রতিযোগী থেকে বিভাগীয় পর্যায়ে লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে ৬৪ জনকে নির্বাচিত করার পর তাদের নিয়ে ১২ অক্টোবর থেকে শুরু হয় ‘বাংলাদেশ জিজ্ঞাসা’র টেলিভিশন সম্প্রচার পর্ব। ৬৪ জন থেকে ৮ জনকে নিয়ে ৭ ও ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সেমিফাইনালে নির্বাচিত হন ৪ জন।

কুইজ শো ‘বাংলাদেশ জিজ্ঞাসা’র চ্যাম্পিয়ন পাবেন এক কোটি টাকা পুরস্কার। প্রথম রানারআপ ২৫ লাখ, দ্বিতীয় রানারআপ ১৫ লাখ টাকা এবং তৃতীয় রানারআপ পাবেন ৫ লাখ টাকা।

বাংলা/এমটি

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0087 seconds.