• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০১ নভেম্বর ২০১৮ ১৫:৩০:০৩
  • ০১ নভেম্বর ২০১৮ ১৫:৪২:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

রোগ প্রতিরোধ ও স্বাস্থ্য উন্নয়নের লক্ষ্যে চালু হল ‘মেডিটর হেলথ’

ছবি : সংগৃহীত

দেশের মানুষের রোগ প্রতিরোধ ও স্বাস্থ্য উন্নয়নে লক্ষ্যে ডিজিটাল পদ্ধতিতে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম চালু করেছে ‘মেডিটর হেলথ’। মোবাইল অ্যাপ এবং নিকটস্থ হেলথ কেয়ার সেন্টার এর মাধ্যমে কম খরচে সহজেই পাওয়া যাবে সেই সকল স্বাস্থ্য সেবা।

মেডিটর হেলথ এর সেবা সমূহের মধ্যে রয়েছে স্মার্ট হেলথ চেকআপ, ডায়েট-ফিটনেস প্ল্যান এবং ডক্টর কনসাল্টেশন সার্ভিস।

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে সহজেই নিকটস্থ মেডিটর কেয়ার সেন্টার খুঁজে পাওয়া যাবে, যেখানে ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিভিন্ন ধরনের হেলথ চেকআপ করা হয় এবং ডাক্তারের পরামর্শ প্রদান করা হয়। কেয়ার সেন্টারে হেলথ চেকআপ শেষে তাৎক্ষণিক রিপোর্ট প্রিন্ট করে দেওয়া হয় এবং অভিজ্ঞ ডাক্তারগণ হাতে লেখা প্রেসক্রিপসনের পরিবর্তে প্রিন্টেড প্রেসক্রিপসন প্রদান করে থাকেন। সেই সাথে মোবাইল অ্যাপেও চেকআপ রিপোর্ট ও প্রেসক্রিপসনের ডিজিটাল ভার্সন সরাসরি চলে আসে, যার ফলে একদিকে যেমন রিপোর্ট বা প্রেসক্রিপসন সমূহ হারিয়ে ফেলার ভয় থাকে না অন্যদিকে সহজেই যে কোন মেডিক্যাল তথ্য সংরক্ষন ও শেয়ার করা যায়।

বর্তমানে রাজধানীর বনশ্রী ও এর পার্শবর্তী এলাকায় (রামপুরা,বনশ্রী,খিলগাঁও,বাড্ডা) পরীক্ষামূলকভাবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করছে মেডিটর হেলথ। পাঁচটি হেলথ চেকআপ পয়েন্ট এবং একটি কেয়ার সেন্টারের সমন্বয়ে উক্ত এলাকায় সফলভাবে বিভিন্ন ধরনের হেলথ চেকআপ এবং ডাক্তারের পরামর্শ সেবা প্রদানের পাশাপাশি এলাকার জনগনের মধ্যে স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। দুই জন ডাক্তার এবং আট জন মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্টের সমন্বয়ে গঠিত একটি টিম উক্ত এলাকায় স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে নিয়োজিত রয়েছে। কিছুদিনের মধ্যেই ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় পূর্ণাঙ্গরূপে বেশ কয়েকটি মেডিটর কেয়ার সেন্টার ও হেলথ চেকআপ পয়েন্ট স্থাপন করা হবে। যেখান থেকে সকল শ্রেণী পেশার মানুষজন ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করতে পারবে।

মেডিটর হেলথ এর প্রধান নির্বাহী জাহাঙ্গীর আলম খান বলেন, ‘বর্তমান বাংলাদেশের ৬৭% এর ও অধিক মানুষের মৃত্যুর প্রধান কারণ অস্কংক্রামক রোগসমূহ যার মধ্যে রয়েছে  হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, হাপানি, রক্তশুন্যতা ইত্যাদি। নীরব ঘাতক হিসেবে চিহ্নিত এইসকল ব্যাধি ধীরে ধীরে আমাদের শরীরে বেড়ে উঠে, তারপর একসময় যখন অবস্থা নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায় তখন আমরা চিকিৎসার জন্য উঠেপড়ে লেগে যাই। ব্যয়বহুল এই সকল রোগের চিকিৎসার ফলে অনেক মানুষই অর্থনৈতিকভাবে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে পরে। অনেকসময় কেড়ে নেয় আমাদের মূল্যবান জীবন। আবার বেঁচে থাকলেও স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়া বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সম্ভব হয়ে উঠে না। কেননা বেশিরভাগ অস্কংক্রামক রোগ পুরোপুরি নিরাময়যোগ্য নয়, নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের মাধ্যমে এই সকল রোগের সাথে টিকে থাকতে হয়।

তবে আশার কথা হল, অস্কংক্রামক রোগসমূহ ৯০% এর ও অধিক ক্ষেত্রে প্রতিরোধযোগ্য। বিশেষজ্ঞদের মতে অস্কংক্রামক রোগসমূহ প্রতিরোধের জন্য প্রয়োজন নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা, পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ, নিয়মিত পর্যাপ্ত শারীরিক পরিশ্রম এবং দ্রুত প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ  ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি। কিন্তু আমরা এই সকল ব্যাপারে বেশিরভাগ সময়ই সজাগ থাকি না কিংবা কিভাবে আমরা এই সেবা গুলো পেতে পারি, এই নিয়ে বেশির ভাগ সময়ি আমরা সংশয়ে থাকি। আমাদের জীবনের এই গুরুত্বপুর্ণ সমস্যার সমাধানের কথা চিন্তা করেই আধুনিক প্রযুক্তি ও চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের সমন্বয়ে যাত্রা শুরু হয়েছে মেডিটর হেলথ স্টার্টআপের’।

মেডিটর হেলথ এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা লুৎফুন নাহার মুক্তা বলেন, ‘মেডিটর হেলথের প্রধান লক্ষ্য হল বাংলাদেশে বিদ্যমান অসংক্রামক রোগসমূহ(হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, হাপানি, স্থূলতা, রক্তশুন্যতা ইত্যাদি) প্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণ করা; পাশাপাশি সবার জন্য প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করণ ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে ‘স্বাস্থ্যকর বাংলাদেশ’ তৈরিতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করা। মূলত আমরা যেন সহজে কোন রোগে আক্রান্ত না হই এবং আক্রান্ত হলেও যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে পারি ও ভবিষ্যৎ রোগের ঝুঁকি কমিয়ে নিয়ে আসতে পারি; পাশাপাশি সময়মত প্রয়োজনীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ ও সঠিক ডায়েট –ফিটনেস প্ল্যান অনুসরনের মাধ্যমে সুস্থ সুন্দর ভাবে জীবন যাপন করতে পারি সেই লক্ষ্যেই কাজ করছে মেডিটর হেলথ’।

মেডিটর হেলথ মোবাইল অ্যাপটি এন্ড্রয়েড প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করে বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। যার মাধ্যমে দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে অভিজ্ঞ ডাক্তার ও পুষ্টিবিদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য পরামর্শ ও সঠিক ডায়েট-ফিটনেস প্ল্যান নেওয়ারও সুযোগ রয়েছে । পাশাপাশি মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে ব্যাক্তিগত ডিজিটাল হেলথ প্রোফাইল খোলা যাবে এবং সকল মেডিক্যাল রেকর্ড সংরক্ষন ও শেয়ার করা যাবে।

বাংলা/এসি

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1626 seconds.