• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৯:৪৬:২১
  • ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ২১:০০:০৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

পদ্মা সেতু নির্মাণে দীর্ঘ বিলম্বের ইঙ্গিত

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশে বিভিন্ন প্রকল্পেই নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি সময় লাগে এবং প্রায় কয়েকগুণ বেড়ে যায় প্রকল্প ব্যায়। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন ‘পদ্মা সেতু’ প্রকল্পের বেলাতেও তার ব্যতীক্রম নয়।

জাজিরা প্রান্তে এখন দৃশ্যমান পদ্মা সেতু। ৪১টি স্প্যানের মধ্যে এখন পর্যন্ত মাত্র ৫টি স্প্যান বসানো হয়েছে। এর মাধ্যমে মূল সেতুর ৭৫০মিটার অবয়ব দাঁড়িয়ে গেছে। ছয় কি.মি. দীর্ঘ এ সেতু দৃশ্যমান হয়েছে ঠিকই কিন্তু এখনও বোঝা যায় বহু কাজ বাকি।

পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ এ বছর ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শেষ হবার কথা থাকলেও দীর্ঘ বিলম্বের ইঙ্গিত দিচ্ছে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ কর্তৃপক্ষ।

ইতোমধ্যে ঠিকাদার কোম্পানি জানিয়ে দিয়েছে, সেতু নির্মাণে দুই বছরেরও বেশি সময় লাগবে। তারা বলছে, বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ২০২২ সালে গিয়ে শেষ হবে পদ্মা সেতুর কাজ। সেই সঙ্গে সর্বশেষ পদ্মা সেতুর প্রকল্প ব্যায় ১০ হাজার কোটি টাকা থেকে গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকারও বেশি।

পদ্মা সেতুর পকল্প ব্যবস্থাপক পিয়ে সিউ বলেন, পদ্মা সেতু স্টিলের কাঠামো। এটি একটার পর একটা বসিয়ে তৈরি করতে অনেক সময় লাগে। আর এখন পর্যন্ত আমরা ৭টি পিলারের চূড়ান্ত নকশাই পায়নি। নকশা হাতে পেলেই বলা যাবে কবে শেষ হবে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ।

এ বিষয়ে পদ্মা সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হবার কথা ছিল ২০১৮ সালের মধ্যে। কিন্তু বিভিন্ন কারণে আমরা কাজটি শেষ করতে পারছি না। সময়মতো সব ডিজাইন না দিতে পারাই মূলত বিলম্ব হচ্ছে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ। নির্মাণ শুরুর পর ত্রুটি ধরা পড়াই নতুন করে ১৯টি পিলারের ডিজাইন করা হয়েছে।

তবে সেতুর কাজে ভাটা পড়লেও হতাশ নন স্থানীয় মানুষ এবং যারা এ নদী দিয়ে যাতয়াত করেন তারা। তারা আশাবাদী পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ আরো দ্রুত শেষ করার বিষয়ে নজর দিবে সরকার।

বাংলা/আরএইচ

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

পদ্মা সেতু

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1646 seconds.