• বিদেশ ডেস্ক
  • ১০ আগস্ট ২০১৮ ১৪:৩৫:৫১
  • ১০ আগস্ট ২০১৮ ১৪:৩৫:৫১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

দুই দেশের দ্বন্দ্বে বিপাকে সৌদি শিক্ষার্থীরা

ছবি : সংগৃহীত

মানবাধিকার ইস্যুতে একটি বিবৃতির কারণে কূটনৈতিক দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পরে কানাডা ও সৌদি আরব। এ কারণে কানাডায় পড়তে যাওয়া ৭ হাজারের বেশি শিক্ষার্থীকে দেশ ছাড়তে বলেছে সৌদি সরকার।

গ্লোবাল নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আগামী সেমিস্টার শুরুর আগে কানাডা ছাড়তে হবে সৌদি শিক্ষার্থীদের। এক্ষেত্রে তাদের হাতে রয়েছে এক মাসেরও কম সময়। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের জন্য কানাডায় সব ধরনের স্কলারশিপ বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব। এতে ঝুঁকিতে পড়েছে সৌদি শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ।

এ নিয়ে কানাডার ভ্যানকুভার এলাকায় পাঁচ বছরেরও বেশি সময় ধরে বসবাসরত এক সৌদি শিক্ষার্থী বলেন,  ‘আমরা এখানে বাড়ি ফিরে যেতে আসিনি, পড়াশোনা করতে এসেছি। এখানে আমার সম্পূর্ণ সজ্জিত একটি দু-বেডরুমের অ্যাপার্টমেন্ট আছে। আমি দীর্ঘদিন ধরে থাকার পরিকল্পনা করছিলাম।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার চার বছরের গ্র্যাজুয়েশনের মাত্র এক ক্রেডিট বাকি আছে। এখন মনে হচ্ছে তা আমি শেষ করতে পারবো না। কারণ আমাদের কানাডা ছেড়ে দেশে চলে আসতে বলা হয়েছে।’

এ নিয়ে সৌদি আরবের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মুবারাক আল ওসামি বলেন, ‘মন্ত্রণালয় ফিরিয়ে আনা শিক্ষার্থীদের জরুরি ভিত্তিতে অন্য কোনো দেশে লেখাপড়ার জন্য পাঠানোর পরিকল্পনা করছে।’

সৌদি আরব থেকে অধিকাংশ শিক্ষার্থীই কানাডায় ডাক্তারি পড়তে যান। আট হাজার ৭৬ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ছয় হাজার ৫০৮ জন মেডিকেলের শিক্ষার্থী।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি সৌদি কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েকজন নারী অধিকার কর্মীকে আটক করেছে, যাদের মুক্তির আবেদন জানিয়েছে কানাডা। এ ঘটনায় সৌদি কর্তৃপক্ষ অভ্যন্তরীণ হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে কানাডার বিরুদ্ধে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

কানাডা সৌদি আরব

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1592 seconds.