• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১১ জুলাই ২০১৮ ২০:৫৮:৫৮
  • ১১ জুলাই ২০১৮ ২১:০৬:৪৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সেই পথশিশু ও মায়ের জন্য ঘর হচ্ছে কুড়িগ্রামে

কলাবাগানের ফুটপাথে সেই পরিবারের সাথে দেখা করতে যান কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন। ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর কলাবাগানে ফুটওভার ব্রিজের নিচে থাকা সেই দুই পথশিশু ও অসুস্থ মায়ের দায়িত্ব নিয়েছেন কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মোসাম্মৎ সুলতানা পারভীন।

বুধবার সকালে দুই পথশিশু ও অসুস্থ মায়ের খোঁজ নিতে ঢাকার কলাবাগানে ছুটে আসেন ডিসি সুলতানা পারভীন। পরে তিনি দুই শিশু ও মায়ের সব রকমের দায়িত্ব নেওয়ার কথা বলেন। এ সময় ঢাকার কুড়িগ্রাম সমিতির মহাসচিব সাইদুল আবেদীন ডলার, সেফটি স্কুলের নির্বাহী সম্পাদক সাখাওয়াত স্বপন ও ফেসবুকে ভিডিও ধারণ করে দেয়া তরুণ পারভেজ হাসান উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক মোসাম্মৎ সুলতানা পারভীন বাংলা’কে বলেন, ফেসবুকে ছবি ও খবরের মাধ্যমে ওই পরিবারের কথা জানতে পারি। তারপর খবর নিয়ে ঢাকার কলাবাগানে তাদের সঙ্গে দেখা করতে যাই। যাওয়ার পর তাদের কষ্ট দেখে এই অসহায় পরিবারকে আমি সব রকমের সহায়তা করব বলে তাদের জানিয়েছি। তাদের থাকার জায়গা ও ঘর তোলার জন্য জেলা প্রশাসন থেকে নগদ টাকা দেওয়া হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘দুই শিশুর লেখাপড়ার দায়িত্ব আমি নিয়েছি। জেলা প্রশাসন থেকে তাদের সব রকমের সহায়তা করা হবে। সরকার সব শিশুকে প্রাথমিক স্কুলে যাওয়া বাধ্যতামূলক করেছে। সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে এটি আমার দ্বায়িত্বের ভেতর পড়ে।’

জেলা প্রশাসক বলেন, ‘ওই পরিবারের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। তারা যেন কোনো ধরনের অভাবে না থাকে। প্রয়োজনে তাদের হাল-চাষের গরু দেয়া হবে। এমন অসহায় দুস্থদের জন্য সরকারের বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে। সেখান থেকেই সব ধরনের ব্যবস্থা করা হবে।’

ঢাকার কুড়িগ্রাম সমিতির মহাসচিব সাইদুল আবেদীন ডলার বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে ওই পরিবারকে কুড়িগ্রাম নিয়ে যাওয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, গত ৬ জুলাই রাজধানীর সোবহানবাগ মসজিদের কাছে জ্বর নিয়ে ফুটপাতে পড়ে থাকেন ফরিদা। পরদিনও রাস্তায় পড়েছিলেন তিনি। এদিন সন্ধ্যায় মাকে বাঁচাতে চেষ্টা করছিল তার দুই শিশু সন্তান। তারা প্লাস্টিকের বোতলে করে মায়ের মাথায় পানি ঢালছিল। সেই দৃশ্য দেখে মোবাইলে ধারণ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পারভেজ হাসান। এরপর তিনি ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করার পর তা ভাইরাল হয়ে যায়। পরিবারটির অসহায়ত্ব তুলে ধরে বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশের পর নজরে আসে কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভিনের। তিনি তাৎক্ষণিকভাবে একটি গণমাধ্যমের সঙ্গে যোগাযোগ করে পরিবারটির দায়িত্ব নেয়ার আশ্বাস নেন। সেই আশ্বাস থেকেই তিনি বুধবার ঢাকায় পরিবারটি সঙ্গে দেখা করেন।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1680 seconds.