• ০৩ জুন ২০১৮ ২১:৩৭:০৫
  • ০৩ জুন ২০১৮ ২১:৩৭:০৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সাইকেলে ৭৬ দিনে সারা বাংলাদেশ

ছবি : বাংলা

 

লালমনিরহাট প্রতিনিধি :

মাদক, বাল্যবিয়েসহ বিভিন্ন সামাজিক অপরাধ দমনে সচেতনতা বাড়াতে বাইসাইকেলে করে টানা ৭৬ দিনে সারা দেশ ঘুরে এলেন উত্তরের জেলা লালমনিরহাটের দুই তরুণ স্কাউটস সদস্য। তাদের নাম মধু মিলন মোহন্ত ও রাকিবুল ইসলাম।

রোববার সকালে তারা নিজ নিজ বাড়িতে এসে পৌঁছে। এর আগে তারা চলতি বছর ১১ মার্চ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান লালমনিরহাটের আদিতমারী জিএস মডেল উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠ থেকে যাত্রা শুরু করেছিল বলে জানা গেছে।

৭৬ দিনে সারা দেশ ঘুরে আসা মধু মিলন মোহন্ত আদিতমারী উপজেলা সদরের বিনয় কুমার মোহন্তের ছেলে। আর রাকিবুল ইসলাম একই উপজেলার কমলাবাড়ি ইউনিয়নের চড়িতাবাড়ি গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে। তারা দুইজনই আদিতমারী জিএস উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সদ্য এসএসসি পাশ করেন।

বাইসাইকেলে করে সারাদেশ ঘুরে আসা সম্পর্কে রাকিবুল ইসলাম জানান, ‘মাদকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াই - জীবনের ঝুঁকি কমাই এবং বাল্যবিয়ে ইভটিজিং বন্ধ করি, সুষ্ঠু নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠি’ - এ শ্লোগানে দেশ পরিভ্রমনে বেড়িয়েছিলেন তারা। ঘুরতে গিয়ে সারা দেশের হাজারো মানুষ তাদের উৎসাহ উদ্দীপনা প্রদান করেছেন। একের পর এক জেলা ঘুরেছেন তারা। ৬০ হাজার ৭ শত টাকা খরচ করে দুই বন্ধু এ সামাজিক আন্দোলনে নিজেদের সামিল করে পেরে দারুন খুশি।

তারা যখন পথে পথে ঘুড়ছে তার মধ্যেই এলো তাদের এসএসসির ফল। মধু মিলন জিপিএ ৪.৮৬ আর রাকিব ৪.১১ পয়েন্ট পেয়ে এসএসসি পাশ করেছেন। তাদের ফলাফলের দিন পরিবারের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করতে না পরলেও দেশের মানুষের সাথে আনন্দটা ঠিকই ভাগাভাগি করতে পেরে তারা ধন্য বলে উল্লেখ করেন রাকিবুল ইসলাম।

রাকিবুলের অপর বন্ধু মধু মিলন মোহন্তের ভাষ্য মতে, জনসচেতনতার অভাবে সমাজে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে মাদক ও বাল্যবিয়ের মত সকল সামাজিক অপরাধ। একটু সচেতনতা বাড়াতে পারলে এসব অপরাধ অনেকাংশে কমে আসবে। এমন অভিপ্রায় নিয়ে দুই বন্ধু মিলে এসএসসি পরীক্ষা শেষ করেই বাইসাইকেল নিয়ে
বেড়িয়ে পরে সারা দেশে সচেতনতা বাড়াতে। তাই তো পরিবার ও শিক্ষকদের সাথে কথা বলে চলতি বছর ১১ মার্চ যাত্রা শুরু করেন তারা।

যাত্রাকালে তাদেরকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিদায় জানিয়েছিলেন আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) আসাদুজ্জামান। যাত্রা পথে যেখানে দুই চার জনের স্বাক্ষাত হয়েছে তাদের মাঝে চালিয়ে যান সামাজিক অপরাধ রোধে তাদের মূল প্রচারনার কাজটি।

এভাবেই এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে। শহর থেকে রাজধানী। পুরো দেশ ঘুরেন তারা বাইসাইকেলে। সর্বশেষে ২৬ মে ৭৬ দিনে ৬৪ নং জেলা হিসেবে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে যাত্রা শেষ করেন তারা। এরপর ফিরে আসেন রাজধানী ঢাকায়।

সেখানে শনিবার (২ জুন) ঢাকাস্থ লালমনিরহাট ছাত্র কল্যান পরিষদ তাদের প্রথম সংবর্ধনা প্রদান করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন পিএসসি সদস্য হামিদুল হক এবং রংপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আতাউর রহমান প্রধান। এরপর রোববার সকালে লালমনি এক্সপ্রেস যোগে ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরেন মিলন ও রাকিবুল।

তাদের বিষয়ে ঢাকাস্থ লালমনিরহাট ছাত্র কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা খন্দককার আসাদুজ্জামান আসাদ জানান, এত অল্প বয়সে তারা যত বড় এজেন্ডা হাতে নিয়ে দেশের মানুষকে সচেতন করার যে বড় মিশনে নেমেছেন, সেটা সত্যিই প্রশাংসার।

এভাবে দেশপ্রেম বোধ জাগ্রত হয়। তাদের এ কৃতিত্ব দেখে বিমোহিত হয়েছে ঢাকাস্থ লালমনিরহাট ছাত্র কল্যাণ পরিষদ। সেকারণে ছোট পরিসরে হলেও তাদেরকে সংবর্ধনা দিতে পেরে সংগঠনের সবাইকে খুব ভালো লেগেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1626 seconds.