• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৩ মার্চ ২০১৮ ১৭:০৩:৪৬
  • ১৩ মার্চ ২০১৮ ১৭:০৩:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
advertisement

পুরনো সিস্টেমকে ঘষেমেজে আনল স্যামসাং

ছবি: ইন্টারনেট

নিরাপত্তার ঝুঁকি নিয়ে তেমন কোন পরিবর্তন ছাড়ায় দেশের বাজারে এলো ১ লাখ ৫ হাজার ৯৯০ টাকা দামের স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯ প্লাস। ইতোমধ্যেই স্মার্টফোনটি বিক্রি শুরু করেছে স্যামসাং বাংলাদেশ।

সম্প্রতি রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (আইসিসিবি) এক্সপো জোনে এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গ্যালাক্সি এস৯ প্লাস’র উন্মোচন ও প্রি-অর্ডার ঘোষণা করে স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশ। সেখানে শাফিন আহমেদ (মাইলস) এর সংগীত পরিবেশনা, রিদি শেখ ও তার দলের নৃত্য পরিবেশনা করে। যা দেখে মনে হয়েছে ফোন বেচতেই এই কনসার্ট এর আয়োজন।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯ প্লাসের দুর্বলতা এর নতুন ফিচার ইন্টেলিজেন্ট স্ক্যান। ফেস রিকগনিশন ও আইরিশ স্ক্যানিং উভয়ই ব্যবহার করে এটি। অতীতে ফেস রিকগনিশন ও আইরিশ স্ক্যানিংকে সহজেই পাশ কাটানো সম্ভব হয়েছে। গবেষকেরা বলছেন, স্যামসাংয়ের এ পদ্ধতিকে সহজেই হ্যাক করা যায়।

সিএনবিসি ওয়েবসাইটের এক প্রতিবেদনে বুলেট ফর্মে এ ফোনটি কেনার আগে দুবার চিন্তা করতে বলা হয়েছে। কারণ নতুন অ্যান্ড্রয়েড আপডেটের ক্ষেত্রে স্যামসাং সবচেয়ে স্লো। এর পরিবর্তে অন্য সাশ্রয়ী অ্যান্ড্রয়েড ফোন দেখতে বলা হয়েছে।

স্যামসাং দাবি করছে, এতে সবচেয়ে উন্নত ক্যামেরার পাশাপাশি বেশ কিছু নতুন ফিচার এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ দাবি করছেন, স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯-এ ইন্টেলিজেন্ট স্ক্যান নামের যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে, তা খুব বেশি নিরাপদ নয়।

স্মার্টফোনে ফেস আনলক পদ্ধতি হিসেবে নতুন পদ্ধতি ইন্টেলিজেন্ট স্ক্যান এনেছে স্যামসাং। এটি ফেস রিকগনিশন ও আইরিশ স্ক্যানিং ব্যবহার করে। যদি ফেস রিকগনিশন কাজ না করে, তখন আইরিশ কাজ করে। যদি দুটিতেই কাজ না হয়, তখন উভয় পদ্ধতি ব্যবহার করে স্মার্টফোন খোলা যায়।

গবেষকেরা দাবি করছেন, আগের কোনো স্মার্টফোনে ব্যবহৃত নিরাপত্তা পদ্ধতির চেয়ে ইন্টেলিজেন্ট স্ক্যান সিস্টেম দ্রুত কাজ করলেও এটি খুব বেশি নিরাপদ নয়।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট সিনেট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, স্যামসাং এখনো টুডি ফেস স্ক্যানিং পদ্ধতি ব্যবহার করছে। এ পদ্ধতিটি গত বছর গ্যালাক্সি এস৮-এর ক্ষেত্রেও ব্যবহার করেছিল। এ ছাড়া গ্যালাক্সি নোট ৭-এ ব্যবহৃত আইরিশ স্ক্যানিং প্রযুক্তি এস৯-এ ব্যবহার করা হয়েছে। এই দুটি প্রযুক্তি মিলিয়ে ইন্টেলিজেন্ট স্ক্যান প্রযুক্তি দ্রুতগতির বা উন্নত হয়েছে কিন্তু খুব বেশি নিরাপদ হয়নি।

এটি এখনো নিখুঁত অর্থ লেনেদেনের মতো প্রযুক্তির ক্ষেত্রে নির্ভরযোগ্য নয়। এর আগে গ্যালাক্সি এস৮-এর ক্ষেত্রে মানুষের মুখের ছবি ব্যবহার করে এ প্রযুক্তিকে বোকা বানানো সম্ভব হয়েছিল। এ ছাড়া আইরিশ পদ্ধতিকেও বোকা বানানো সম্ভব হয়েছিল।

হ্যাকিং গ্রুপ কম্পিউটার ক্যাওস ক্লাবের নিরাপত্তা গবেষক জ্যান ক্রিসলারের বরাত দিয়ে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একটা পুরোনো সিস্টেমকেই নতুন করে আনা হয়েছে মাত্র। এর আগে গ্যালাক্সি এস৮ আইরিশ স্ক্যানিং প্রযুক্তি তাঁরা ভেঙে দেখিয়েছিলেন।

প্রযুক্তি বিশ্লেষক আভি গ্রিনগার্ট বলেছেন অ্যাপলের পেছনে পড়ে গেছে স্যামসাং। অ্যাপল তাদের ফেস আইডির পেছনে প্রচুর অর্থ, সময় ও পরিশ্রম করেছে। স্যামসাংয়ের আগে থেকে ফেস আইডির একটি সংস্করণ থাকলেও তারা অ্যাপলকে ধরার চেষ্টা করে যাচ্ছে। অ্যাপল তাদের আইফোন ১০-এ যে ফেস আইডি প্রযুক্তি এনেছে, তা ধরার চেষ্টা করছে স্যামসাং।

ব্যবসা ও প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট বিজনেস ইনসাইডারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯ স্মার্টফোনটিতে কিছু হালনাগাদ আনলেও গত বছরের গ্যালাক্সি এস৮-এর তুলনায় উল্লেখযোগ্য কিছু নেই। এ ছাড়া এস৯-এর দাম অনেক বেশি।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসের আগে গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯ প্লাস স্মার্টফোনের ঘোষণা দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাং। সূত্র : এনডিটিভি, সিএনবিসি, বিজনেস ইনসাইডা

বাংলা/এসি/আরএইচ

advertisement

আপনার মন্তব্য

advertisement
Page rendered in: 0.1706 seconds.