ছবি: ইন্টারনেট

শুনলে হয়তো সালমান–ভক্তরা কষ্টই পাবেন। এমনও দিন গেছে প্রিয় তারকার! বলিউড হার্টথ্রব সালমান একটা সময় এমনই যন্ত্রণায় ভুগছিলেন যে রীতিমতো আত্মহত্যার প্রবণতাও তৈরি হয়েছিল তার মধ্যে। সে যন্ত্রণা সহ্য করা কঠিন।

সম্প্রতি, ‘টিউবলাইট’ ছবির প্রথম গান রেডিওর জন্য প্রচারে দুবাই এসে সালমান খান বলেছেন, অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক এই রোগ তার সঙ্গী। রোগটির অন্য নাম সুইসাইড ডিজিজ। কারণ অনেকে এর ফলে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকে পড়েন।

যে রোগে সালমান ভুগছিলেন, সে রোগের নাম ট্রাইজেমিনাল নিউরালজিয়া। এককথায় ফেসিয়াল নার্ভ ডিসঅর্ডার। সালমান বলেছেন, যন্ত্রণায় পাগল হয়ে একটা সময়ে তার নিজেরও আত্মহত্যার ইচ্ছে হয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত নিজেকে হারতে দেননি। যন্ত্রণা থেকে দূরে থাকতে, ভুলে থাকতে পরিশ্রম আরও বাড়িয়ে দেন। এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের আত্মহত্যার হার সবচেয়ে বেশি বলেও সাক্ষাৎকারে জানান সালমান।

কিন্তু কী এই রোগ? মুখের স্নায়ুতে প্রদাহের কারণ এই ডিসঅর্ডার। এর ফলে মারাত্মক যন্ত্রণা হতে পারে। এর ফলে হতাশায় ভুগে অনেকে আত্মহত্যা পর্যন্ত করেন।

এই রোগের বিশেষ কারণ নেই। মুখে টিউমার হলে, ধমনিতে অস্বাভাবিক কিছু ধরা পড়লে, রক্ত কোষ সংকুচিত হলে এমনটা হতে পারে। আবার এ সবকিছু না হলেও হতে পারে।

মুখের এক দিকে প্রচণ্ড যন্ত্রণা এই রোগের ইঙ্গিতবাহী। দাঁত মাজা, মুখ ধোয়ার সময় শুরু হতে পারে ব্যথা। কয়েক সেকেন্ড থেকে কয়েক মিনিট পর্যন্ত থাকতে পারে। এতে আক্রান্ত হতে পারে চোয়াল, দাঁত, মাঢ়ি আর ঠোঁট।

৫ মে মুক্তি পেয়েছে কবির খান পরিচালিত ও সালমান খান ও তার মা সালমা খান প্রযোজিত ইন্ডিয়া ও চীনের যুদ্ধ নিয়ে বহুল আলোচিত সিনেমা ‘টিউবলাইট মুভির টিজার। এ ছবিতে সালমানকে দেখা যাবে সম্পূর্ণ ভিন্ন এক চরিত্রে।

আপনার মন্তব্য