নিজস্ব প্রতিবেদক

অন্যকে জানাতে পারেন:

Court orders

নরসিংদীতে ব্যবসায়ী গোলাপ হোসেনকে ১০ টুকরো করে হত্যার চাঞ্চল্যকর মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুরে নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এ.কে.এম মোজাম্মেল হক চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মোস্তাফিজুর নামে একজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- কুরের পাড় গ্রামের টকি মাহমুদের ছেলে আনোয়ার হোসেন, আব্দুল আউয়ালের ছেলে মোশারফ হোসেন,ওমর আলীর ছেলে ফিরোজ মিয়া, আব্দুল আউয়ালের ছেলে জুলহাস মিয়া, আমজাত আলীর ছেলে আকবর আলী ও আ. গনি মিয়ারে ছেলে সুন্দর আলী। আসামিরা সবাই নরসিংদীর পাজদোনা মেহেরপাড়া ইউনিয়নের কুড়েরপার গ্রামের বাসিন্দা।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৩ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি পাচদোনা হইতে ঔষধ নিয়ে নিজ বাড়িতে যাওয়ার পথে নিখোজ হয় গোলাপ হোসেন (৩০)। বহু খোঁজাখুঁজি করেও তার কোন সন্দান পাওয়া যায়নি। নিখোঁজের ৩দিন পর পাঁদোনা ব্রক্ষপুত্র নদীর তীরে এক ব্যক্তির কাটা হাতের একটি অংশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। এর পাশে কাদা মাটিতে পুঁতে রাখা অবস্থায় লাশের কিছু অংশ দেখা যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত লাশের মাথাসহ ১০টি টুকরার উদ্ধার করে। পরে নিহত গোলাপের বাড়ির লোকজন তার লাশ শনাক্ত করে।

এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই মেহেরপাড়া ইউপি সদস্য মোস্তফা হোসেন বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় ১৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। পরে সাক্ষ্য প্রমাণসহ উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আজ রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলী অ্যাড. অলিউল্লাহ রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, ১৫ জনের সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দেন।

আপনার মন্তব্য

Daraz Bangla New Year
advertisement

advertisement
advertisement