ফিচার ডেস্ক

অন্যকে জানাতে পারেন:

advertisement
ছবি: সংগৃহীত

ষড়ঋতুর দেশে আবহমান গ্রামবাংলার প্রকৃতিতেই মূলত বসন্ত জানান দেয় তার আগমনী বার্তায়। গ্রামের মেঠোপথ, নদীর পাড়, গাছ, মাঠভরা ফসলের ক্ষেত বসন্তের রঙে রঙিন হয়ে ওঠে। চোখ বুজলেও টের পাওয়া যায় এসব দৃশ্যপট। তবে নগর জীবনেও বসন্ত ছন্দ তোলে মৃদু হিল্লোলে।

কংক্রিটের নগরীতে কোকিলের কুহুস্বর ধ্বনিত হয় ফাগুনের আগমন সামনে রেখে। যানজট, কোলাহল ছাপিয়েও যেটুক প্রকৃতি খুঁজে পাওয়া যায় নগরে, একেই অতি আপন করে নেন নগরের কর্মব্যস্ত মানুষ।

তরুণীরা বাসন্তী রঙয়ের শাড়ি পরে প্রকৃতির কোলে নিজেকে সপে দিতে চাইবে। আর বসন্তের উদাস হাওয়ায় তরুণেরা নিজেকে প্রকাশ করবে প্রেমে প্রেমে। বসন্ত যেন মানবমন আর প্রকৃতির রূপ প্রকাশের লীলা-খেলা। বসন্ত উৎসব বলি আর বরণই বলি, এটি মিশে আছে একেবারে আবহমান গ্রাম বাংলার মাটি-মানুষের সঙ্গে। শ্যামলী বাংলার গাছ-গাছালিতে পত্রপল্লবের নতুন কুড়ি যেন গ্রামীণ মানুষের অন্তরকে আরও শুভ্র করে, করে পবিত্রও।

তবে বসন্ত উৎসব আজ গ্রামীণ আয়োজনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। শহুরে মানুষের কাছেও বসন্তের আবেদন ভিন্নমাত্রা যোগ করেছে।

তেমনই রাজধানীর শাহবাগ এলাকায় জাতীয় জাদুঘরের সামনে জ্যামের মধ্যে তোলা একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গেছে। জহিরুল হক নামের এক ব্যক্তির তোলা ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বসন্তের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অনেকেই।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এক তরুণী নিজের স্কুটি নিয়ে জ্যামে আটকে আছেন। যে কারো চোখ সেদিকে চলে যাবে, যাচ্ছেও তাই। কেননা তরুণী বসন্ত সাঁজে এসেছেন। সেটাও বিষয় নয়, বিষয়টা হলো শাড়ি পরে স্কুটি চালাচ্ছেন। আবার বলতে গেলে সেটাও বিষয় নয়, বিষয়টা হলো শাড়িটি বাসন্তী রঙের। তবে এরচেয়ে মুখ্য বিষয় হলো তরুণীর স্কুটিও বাসন্তী রঙের। স্বাভাবিকভাবে দৃষ্টি সরছে না।

বিষয়টি খুব ইতিবাচক ভাবে নিয়ে ফেসবুকে শেয়ার করেছেন নেটিজেনরা। তবে তিনি হেলমেট না পরে স্কুটি চালানোয় অনেকে সমালোচনাও করেছেন।

এদিকে খোঁজ নিয়ে যানা যায়, তরুণীটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগে শিক্ষার্থী শুদ্ধ শুভ্রা।তিনি উদীচী শিল্পী গোষ্ঠির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সাধারন সম্পদক।

এর কিছুক্ষণ পরে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে বলেছেন, ‘‘আজ সকালে হলুদ শাড়ি পরে নিজের হলুদ স্কুটি চালিয়ে অফিসে আসছিলাম। মাঝখানে কে কখন আমার ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করেছে তা জানতেও পারিনি। ভাইরাল হওয়া ছবিটিতে নানা রকমের কমেন্ট আসছে। যার সবগুলো নেতিবাচক না হলেও কিছু কিছু কমেন্ট ব্যক্তিগতভাবে একজন নারী হিসেবে আমাকে আক্রমণ করা হচ্ছে। যিনি ছবিটি তুলেছিলেন তার প্রতি আমার আহ্বান থাকবে অন্তত ছবি তুলবার আগে যার ছবি তুলছেন তার অনুমতি নেয়ার প্রয়োজনবোধ মনে করুন।’’

উল্লেখ্য, দুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরাল হয়ে যান ভারতীয় তরুণী প্রিয়া। তার রেশ কাটতে না কাটতেই শুদ্ধ শুভ্রার ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচিত হচ্ছে।

বাংলা/আরএইচ

advertisement

আপনার মন্তব্য