ফিচার প্রতিবেদক

অন্যকে জানাতে পারেন:

ছবি: সংগৃহীত

আপনি জানেন কি লাল চায়ের উপকারিতা? সকালে, বিকেলে, কাজের ফাঁকে কিংবা কোনো আড্ডায় এক কাপ চা না হলে যেন চলেই না। কিন্তু এই সময় গুলোতে কি চা খান আপনি? দুধ চা কিছু সময়ের জন্য আপনার মনকে ভালো রাখলেও শরীরের কোনো উপকারেই আসে না। কিন্তু এই দুধ চায়ের পরিবর্তে যদি এক কাপ লাল চা হয়, তাহলে আপনার মনের পাশাপাশি তা আপনার শরীরের অনেক উপকারেও আসবে। শরীর গঠনের জন্য এই পানীয় অনন্য। তাহলে জেনে নিন লাল চায়ের কিছু উপকারিতা।

১. খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়:
খারাপ কোলেস্টরের মাত্রা শরীরে বেড়ে যেতে থাকলে যেমন হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা বেড়ে যায়, তেমনি হার্টের নানা রোগের প্রকোপ দেখা যায়। তাই রক্তে যেন খারাপ কোলেস্টরের মাত্রা যেনো বেড়ে না যায় সে দিকে লক্ষণ রাখতে হবে। তাই আপনার রক্তে খারাপ কোলেস্টরের মাত্রা কমাতে নিয়মিত লাল চা খাওয়া শুরু করুন। লাল চা আপনার রক্তের খারাপ কোলেস্টরল কমাতে সহায়তা করবে।

২. হাড়কে শক্তপোক্ত করে:
লাল চায়ে রয়েছে ফাইটোকেমিকালস। যা হাড়কে শক্ত করতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন লাল চা পানের ফলে আর্থ্রাইটিসের মতো রোগ প্রকোপের আশঙ্কা কমে।

৩. স্ট্রেস কমায়:
লাল চায়ে বিদ্যমান অ্যামাইনো অ্যাসিড স্ট্রেস কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তাছাড়া এই উপাদানটি আপনার মনকে চনমনে রাখতে সহায়তা করবে।

৪. ওজন হ্রাস করে:
নিয়মিত লাল চা পানের ফলে হজম শক্তির উন্নতি ঘটে। আর তাই শরীরে অতিরিক্ত মেদ জমতে পারে না। আপনার ওজন যদি একটু বেশি হয়ে থাকে তাহলে আপনার ওজন কমাতে নিয়মিত লাল চা খাওয়া শুরু করেন।

৫. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:
লাল চায়ে রয়েছে টেনিস নামের একটি উপাদান। যা আপনার শরীরকে ক্ষতিকর ভাইরাস থেকে বাঁচাবে। তাই নানাবিধ রোগের প্রকোপ থেকে বাঁচতে  নিয়মিত লাল চা পান করেতে শুরু করুন।

৬. ক্যান্সার প্রতিরোধ করে:
নিয়মিত লাল চা পানের ফলে আপনি রক্ষা পেতে পারেন ক্যান্সার এর মতো মরন ব্যাধির হাত থেকে। লাল চায়ে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রপাটিজ ছাড়াও এমন কিছু উপাদান যা আপনার কলোরেকটাল, ব্লাডার, ওরাল এবং ওভারিয়ান ক্যানসার থেকে রক্ষা করে। এছাড়াও ম্যালিগনেন্ট টিউমার প্রতিরোধ করতে লাল চায়ের জুড়ি নেই।

৭. হজম শক্তির উন্নতি ঘটায়:
লাল চায়ে রয়েছে টেনিস নামের একটি উপাদান, যা আমাদের হজম শক্তির উন্নতি ঘটায়। সেই সাথে গ্যাস্টিকের প্রকোপ থেকে আমাদের রক্ষা করে।

৮. মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে:
লাল চা মস্তিষ্কের রক্ত চলাচলের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। কারণ লাল চায়ে ক্যাফিনের পরিমাণ কম থাকে। তাই নিয়মিত লাল চা পানের ফলে ব্রেনের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে স্ট্রেস কমে। এক গবেষণায় পাওয়া যায় টানা ১ মাস লাল চা পানের ফলে পারকিনস রোগের ঝুঁকি কমে।

৯. হার্ট চাঙ্গা রাখে:
লাল চায়ে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রপাটিজ। যা আমাদের হার্টের রোগে আক্রান্ত হওয়ার হাত থেকে বাঁচায়। তাই হার্টের স্বাস্থের উন্নতিতে লাল চায়ের কোনো জুড়ি নেই। তাই নিয়মিত লাল চা পানের ফলে স্ট্রোকের আশংকা কমে।

১০. রক্তের শর্করার মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণ রাখে:
লাল চায়ে রয়েছে ক্যাটাচিন ও থিয়াফ্লেবিন। যা আমাদের শরীরে প্রবেশ করার পর ইনসুলিনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এর ফলে রক্তে শর্করা মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার সুযোগ হ্রাস পায়।

আপনার মন্তব্য

advertisement

advertisement