বিদেশ ডেস্ক

অন্যকে জানাতে পারেন:

ছবি: সংগৃহীত

এই গ্রামে কেউ একবার ঘুমিয়ে পড়লে তা ভাঙে ৬ দিন পর। ফলে গ্রামটিকে নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে রয়েছে আতঙ্ক। কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানা থেকে প্রায় ৩০০ মাইল দূরে এই গ্রাম। সেখানে ঘুমের এই ভূতুড়ে ঘটনার কথা প্রথম জানা যায় ২০১৩ সালে।

আগে কিন্তু গ্রামটি স্বাভাবিকই ছিল। গত ৪ বছর ধরে এমন অদ্ভূত ব্যাপার লক্ষ্য করা গেছে। গ্রামটির অবস্থান অবশ্য এশিয়ার কোনো দেশে নয়! অদ্ভূত ঘটনাটি ঘটে কাজাখস্তানের কালাচি নামক গ্রামে।

গ্রামের যারা টানা ৬ দিন ঘুমিয়ে জেগে ওঠেন, তাদের মধ্যে কিছু অস্বাভাবিক ব্যাপার লক্ষ্য করা যায়। গ্রামের যারা ৬ ‌দিন ধরে ঘুমান, সেই ক’‌দিনে ক্ষুধা, তৃষ্ণা কিংবা অন্য কোনও জৈবিক চাহিদাও তাদের পূরণ হয়না। কিন্তু তাতে স্বাস্থ্যের কোনো অস্বাভাবিকতা চোখে পড়ে না।

সমস্যা দেখা যায় মানসিকতায়। ঘুম ভাঙার পরে তাদের কিছুই মনে থাকে না। দৃষ্টি বিভ্রম হয় বলেও অভিযোগ আছে। তবে গ্রামের সবাই যে এমন ঘুমে আচ্ছন্ন হন তা কিন্তু নয়। মূলত শিশু এবং বৃদ্ধরাই এই ঘুমের কবলে পড়েন।

গ্রামে থাকা ৬৮০জন বাসিন্দার মধ্যে এপর্যন্ত আজব ঘুমের কবলে পড়েছেন মোট ১৪১ জন। আধুনিক বিজ্ঞান এখন পর্যন্ত এই ঘটনার কোনো যুক্তিসম্মত ব্যাখ্যা দিতে পারেনি। তবে গ্রামের কাছেই একটি ইউরেনিয়ামের খনি রয়েছে।

বিজ্ঞানীদের ধারণা ওই খনির থেকে ছড়িয়ে পড়া তেজস্ক্রিয়তার কারণেই এমনটা ঘটছে। তবে সেই এলাকায় বিজ্ঞানীরা তেজস্ক্রিয়তার পরিমাণ পরীক্ষা করে হতাশই হয়েছেন।

আপনার মন্তব্য

advertisement

advertisement