ক্রীড়া ডেস্ক

অন্যকে জানাতে পারেন:

ছবি: সংগৃহীত

লড়াইটা যে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষদলের সাথে পঞ্চম দলের সেটা পরিস্কারভাবেই দেখিয়ে দিলো ঢাকা ডায়নামাইটস। নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে রাজশাহী কিংসকে ৬৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে নিজেদের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করে নিলো সাকিব আল হাসানের ঢাকা।

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২০১ রানের পাহাড় গড়ে ঢাকা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৩৩ রানে অলআউট হয় ড্যারেন সামির রাজশাহী কিংস।

মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে ঢাকার দেওয়া ২০২ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় রাজশাহী কিংস। আবু হায়দার রনির প্রথম ওভারেই রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরের পথ ধরেন রাজশাহীর ওপেনার রনি তালুকদার। সেখান থেকে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি ড্যারেন সামি এন্ড কোং। যা একটু প্রতিরোধ তৈরি করেন জাকির হাসান। ২৩ বলে ৩৬ রান করেন জাকির।

অবশ্য রাজশাহীকে ঘুরে দাঁড়াতে দেননি ঢাকার পাকিস্তানী অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদী। সমানভাবে আক্রমণ চালান আবু হায়দার রনি ও সাকিব আল হাসান।

১৮.২ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৩৩ রান তুলতে পারে রাজশাহী কিংস। ৪ ওভারে ২৬ রান খরচায় ৪ উইকেট তুলে নেন আফ্রিদী। আবু হায়দার রনি নেন ৩ উইকেট। দলপতি সাকিব আল হাসানের ঝুলিতে ২ উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনার এভিন লুইস ও অলরাউন্ডার কাইরন পোলার্ডের তাণ্ডবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২০১ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় ঢাকা ডায়নামাইটস।

ঢাকার হয়ে ওপেন করেন এভিন লুইস ও শহীদ আফ্রিদী। মাত্র ৪ ওভারে ৫৩ রান তোলেন এই জুটি। তবে ৫ম ওভারের ১ম আফ্রিদীকে ফিরিয়ে রাজশাহী শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে আনেন নিজের প্রথম ওভারে ১৬ রান দেয়া মেহেদী হাসান মিরাজ। ৮ বলে ১৫ রান করে মিরাজের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান আফ্রিদী।

এরপর জহুরুল ইসরাম ঝড়ে ঈঙ্গিত দিলেও ৬ বলে ১৩ রান করে মিরাজের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান। দলীয় ৯৯ রানের মাথায় এভিন লুইসকে ফেরান হোসাইন আলী। তার ৩৮ বলে খেলা ৬৫ রানের ইনিংসে ছিল ১০টি চার ও ১টি ছক্কার মার।

নাদিফ চৌধুরী ও সাকিব আল হাসান দ্রুত ফিরে গেলেও ঢাকাকে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে নেন কুমার সাঙ্গাকারা ও কাইরন পোলার্ড। দলীয় ১৮৬ রানের মাথায় হোসাইন আলীর বলে ফিরে যান সাঙ্গা। ২২ বলে ২৮ রান আসে এই লঙ্কান কিংবদন্তীর ব্যাট থেকে।

কাইরন পোলার্ডের ২৫ বলে খেলা ৫২ রানের ইনিংসের উপর ভর করে শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২০১ রান সংগ্রহ করে ঢাকা। পোলার্ডের ঝড়ো ইনিংসটি সাজানো ছিল ৫টি চার ও ৩টি ছক্কার মারে।

রাজশাহীকে ৬৮ রানে হারিয়ে ৬ ম্যাচে ৪র্থ জয় তুলে নিলো ঢাকা। ৯ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষেই আছে বিপিএলের সফলতম দলটি। সমান ম্যাচে মাত্র ২ জয় নিয়ে টেবিলের ৫ম স্থানে আছে রাজশাহী কিংস।

ম্যাচসেরা হন এভিন লুইস। রাজশাহীর পক্ষে হাসান আলী তিনটি ও মিরাজ দুটি উইকেট পান। আর হাবিবুর রহমান ও প্যাটেল পান একটি করে উইকেট।

এই জয়ে ঢাকার সংগ্রহ আট ম্যাচে ৯ পয়েন্ট। তারা আছে শীর্ষে। আর রাজশাহী ৪ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানেই থেকে গেল।

আপনার মন্তব্য

advertisement