বিদেশ ডেস্ক

অন্যকে জানাতে পারেন:

বুধবার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল হায়দারাবাদের সংস্থায় কর্মরত আইনজীবী হেরা জাভেদের। সেইমতো ছুটি নিয়ে কলকাতার বাড়ি ফিরেছিলেন তিনি। সোমবার গায়ে হলুদ হয়ে যায়। কিন্তু সন্ধ্যা থেকে হেরার শুরু হয় অসহ্য পেটের যন্ত্রণা, সঙ্গে বমি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। 

জিডি হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, তার অন্ত্রে কিছু সমস্যা হয়েছে। চিকিৎসা শেষ হয়নি, ফলে বিয়ের আগে ছেড়ে দেওয়ার প্রশ্নই নেই। 

পাত্র-পাত্রী দুজনের পরিবারেই ঘনিয়ে আসে মেঘ। ইসলামে গায়ে হলুদের পর বিয়ে বন্ধ হওয়া অমঙ্গল। শেষে ঠিক হয়, বিয়ে হবে, বুধবার রাতেই হবে। পাত্র মহম্মদ শাহনওয়াজ আলম মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার, থাকেন সৌদি আরবের দাম্মামে। তিনি পরিবারের ১৫ জন সদস্য নিয়ে চলে আসেন জিডি হাসপাতাল। রাইলস টিউব খুলে লাল লেহঙ্গা পরা ২৮ বছরের হেরাকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে নিয়ে আসা হয় হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে। সেখানেই কাজির সামনে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

হাসপাতাল যে নিজেদের কনফারেন্স রুমে হেরা-শাহনওয়াজের বিয়ের অনুষ্ঠান করতে দিয়েছে তাতে কৃতজ্ঞ দুই পরিবার। শুধু ঘরের ব্যবস্থা করা নয়, হাসপাতাল কর্মীরা চা, কফি, সন্দেশ, বিস্কুটের আয়োজন করেন তাদের জন্য।

বিয়ের পর হেরা সোজা ফিরে যান হাসপাতালের ফিমেল ওয়ার্ডে। আর শাহনওয়াজ যান বেনিয়াপুকুরের বিয়েবাড়িতে, অতিথিদের পেট ভরে খাওয়ান মাটন বিরিয়ানি, চিকেন চাপ, বেবি নান আর শাহি টুকরার ভোজ।
 

আপনার মন্তব্য

advertisement

advertisement