নিজস্ব প্রতিবেদক

অন্যকে জানাতে পারেন:

flood in hatibandha again
ছবি: সংগৃহীত

ভারী বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে আবারও তিস্তার নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধার ৬টি ইউনিয়নে প্রায় ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব এলাকায় নতুন করে দেখা দিয়েছে বন্যা।

শুক্রবার সকালে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে ৫২.১৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ব্যারেজটি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ৪৪টি গেট খুলে দেওয়া হয়েছে। সকাল থেকে তিস্তার পানি কমছে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত থেকে তিস্তার পানি বৃদ্ধিতে হাতীবান্ধা উপজেলার ৬ ইউনিয়ন গড্ডিমারী দোয়ানী, ছয়আনী, নিজ গড্ডিমারী, সানিয়াজানের নিজ শেখ সুন্দুর, পাড়শেখ সুন্দর, বাঘের চর, জিঞ্জির পাড়া,ঠাংঝাড়া, সিংঙ্গীমারীর, ধুবনী, চর ধুবনী, উত্তর ধুবনি, সিন্দুর্না, চর সিন্দুনা, হলদিবাড়ি, ডাউয়াবাড়ির ইউনিয়নের, বিছন দই, উত্তর ডাউয়াবাড়ি এলাকার প্রায় ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়েছে।

এদিকে শুক্রবার রাতে গড্ডিমারী ইউনিয়নের তালেব মোড় বাজার এলাকায় বালির বস্তা দিয়ে বাঁধটি রক্ষা করা হয়েছে। রাতেই হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ এনামুল কবির ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহম্মেদ এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

উপজেলা গড্ডিমারী ইউনিয়নে দোয়ানী গ্রামের আমজার হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার থেকে তিস্তার পানি হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়ে একদিনের মধ্যে আমারা পানিবন্দি হয়ে পড়েছি।

হাতীবান্ধার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহম্মেদ জানান, বৃহস্পতিবার রাত থেকে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলার পাঁচ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বর্তমানে পানি কমতে শুরু করেছে।

আপনার মন্তব্য

advertisement

advertisement